রোববার   ২৬ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১২ ১৪২৬   ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনা ভাইরাস: ভারতে পর্যবেক্ষণে ১১ জন, বাংলাদেশে সতর্কতা আগামীকাল চালু হচ্ছে অত্যাধুনিক ‘জামালপুর এক্সপ্রেস’ জানুয়ারি মাসের শেষে টানা তিন দিন বৃষ্টির সম্ভাবনা। চীনে করোনা ভাইরাসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪১। ভারত-বাংলাদেশ বাণিজ্যে প্রভাব ফেলবেনা পেঁয়াজ ও সীমান্ত ইস্যু- বাণিজ্যমন্ত্রী নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার নানামুখী পথ খুঁজছে বিএনপি- কাদের আমরা বন্ধুত্ব ধরে রাখতে চাই: আ’লীগকে উদ্দেশ্য করে মশিউর রহমান রাঙ্গা।
৪০৯

 পূর্ব প্রস্তুতিতে ৮০ শতাংশ ডায়াবেটিক কমানো সম্ভব

নীলফামারি বার্তা

প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০১৮  

মানুষই এ মরণব্যাধি থেকে রক্ষা পেতে পারে। ঔষধ সেবনের আগে মানুষের দৈনিক জীবনের নিয়মাবর্তিতা থাকলে অনায়াসে এ রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সম্মেলন কক্ষে বিশ্ব ডায়াবেটিক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ কথা বলেন।

তিনি জানান, সারা বিশ্বে কোটি কোটি মানুষ ডায়াবেটিকে আক্রান্ত। বাংলাদেশে মোট মানুষের ৭ থেকে ১০ শতাংশ ডায়াবেটিকে আক্রান্ত। প্রতিবছর ৫০ হাজার মানুষ ডায়াবেটিকে মারা যাচ্ছে। এ রোগ এদানিং মহিলাদের মাঝে বেশি দেখা যাচ্ছে।

জাহিদ মালিক বলেন, মায়ের পেট থেকে ডায়াবেটিক রোগ নিয়ে জন্ম নেয়া শিশুদের সরকারিভাবে সারাজীবন ইনসুলিন বিনামূল্যে বিতরণের জন্য সরকার উদ্যোগ নেবে। এ রোগ নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারায় কিডনি ও হৃদ রোগের পরিমান বেড়ে যাচ্ছে। এমনকি এ ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাচ্ছে। ফলে এই ডায়াবেটিক কমিয়ে আনা এখন আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।

মন্ত্রী জানান, ডায়াবেটিক রোগীর চিকিৎসায় সাধারণ রোগীর চিকিৎসা খরচের ৬ গুণের বেশি খরচ হয়। ফলে এ রোগ প্রতিরোধ অনেক বেশি ব্যায়বহুল বটে।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি প্রতিটি নাগরিকের ফিজিক্যাল এক্টিভিটি অনেক বেশি বাড়াতে হবে। প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়ামসহ খাদ্যভ্যাস পরিবর্তন করতে হবে। অধিক পরিমানে চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়া যাবে না।

প্রতিমন্ত্রী জানান, আজ বিশ্ব ডায়াবেটিক দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ সচিবালয়ে কর্মরত ব্যক্তিদের ৮ শত ৫০ জনের মাঝে ডায়াবেটিক পরীক্ষা করা হয়েছে। সেখানে সাড়ে ৮ শতাংশ মানুষের ডায়াবেটিক ধরা পড়েছে। ফলে এটা পরিস্কার, বিষয়টি অত্যান্ত ভয়াবহ।