রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

২৬

আসছে আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের ‘আস্থা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি’

প্রকাশিত: ২০ আগস্ট ২০১৯  

আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ‘আস্থা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি’ নামে একটি জীবন বীমা কোম্পানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

২০১৫ সালের ২৫ আগস্ট সশস্ত্র বাহিনী ও অন্যান্য আধা-সামরিক বাহিনীর আহত ও নিহত সদস্যদের এবং তাদের পরিবারের কল্যাণ, পুনর্বাসন ও উন্নয়নের লক্ষ্যে এ জীবন বীমা কোম্পানির জন্য আবেদন করা হয়। চলতি বছরের ৭ জুলাই এ বীমা কোম্পানি গঠনের জন্য নীতিগত অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

জানা গেছে, সশস্ত্র বাহিনীর পাশাপাশি বিজিবি, কোস্টগার্ড, পুলিশ, আনসার ও র‌্যাব সদস্যরা বীমা কোম্পানিটি থেকে বীমা সহায়তা পাবেন। 

আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. গোলাম ফারুক ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, জীবন বীমা কোম্পানিগুলো যে সেবা দিচ্ছে আমরা তার পাশাপাশি আরো একটু বাড়তি সেবা দেব। যেমন- যুদ্ধক্ষেত্রে আমরা বীমার সুবিধা দেব।

নীতিগত অনুমোদনের সারসংক্ষেপে বলা হয়, দায়িত্ব পালনকালে বিভিন্ন সময়ে সামরিক সদস্যরা গুরুতর আহত, এমনকি মৃত্যবরণও করে থাকেন। এদের অনেকেই পেনশন পাওয়ার যোগ্যতা অর্জনের পূর্বেই মৃত্যুবরণ করেন অথবা আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করেন। অনেকে গুরুতর রোগে আক্রান্ত হয়ে কিংবা অনাভিযানিক দুর্ঘটনায় (সড়ক দুর্ঘটনা, অগ্নিকাণ্ডে আক্রান্ত, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হওয়া প্রভৃতি) মৃত্যুবরণ করেন। তাদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হচ্ছে না।

এতে আরও বলা হয়েছে, বৈদেশিক কর্তব্যে দেশের বাইরে নিয়োজিত থাকাকালীন উপরোক্ত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার বিষয়টি প্রচলতি অন্যান্য লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি কর্তৃক সংঘাতপূর্ণ অঞ্চল/এলাকা হওয়ার কারণে ইতিবাচকভাবে বিবেচিত না হওয়ায় সংশ্লিষ্ট সামরিক ও পুলিশ সদস্যরা এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় বীমা সহায়তা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এ সমস্যা নিরসনে বাহিনীগুলো বিভিন্ন পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট সামরিক সদস্য এবং তাদের পরিবারের কল্যাণে নিজস্ব উদ্যোগ ও ব্যবস্থাপনায় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অনেকাংশেই অপ্রতুল।

এ অবস্থা নিরসনে আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ‘আস্থা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড’ গঠনের অনুরোধ জানিয়ে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে। পরে এ বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়, ব্যাংক ও আর্থিকপ্রতিষ্ঠান বিভাগের মতামত চাওয়া হলে অর্থ মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট ইন্সুরেন্স কোম্পানি গঠনের অনুকূলে মতামত দেয়।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর