শনিবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৪ ১৪২৬   ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

১০৯

ইংল্যান্ডের লজ্জায় হলো বিশ্ব রেকর্ড

প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০১৯  

প্রথমে অবিশ্বাস্য ঠেকছিল। জশ হ্যাজলউড, কামিন্স আর প্যাটিনসন বল করছেন, আর উইকেট তুলে নিয়ে যাচ্ছেন। পুরো অ্যাশেজে স্মিথ ও লেবুশেন ছাড়া অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদের এভাবে উইকেটে আসা যাওয়া করতে দেখা গেছে। কিন্তু ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের পেসের সামনে এভাবে মাথা কুটে মরতে দেখা গেল এই প্রথম। অবিশ্বাস কাটিয়ে ওঠার আগেই মধ্যাহ্নবিরতির আগে ৬ উইকেটে ৫৪ করা ইংল্যান্ড ৬৭ রানেই গুটিয়ে গেল!

ফ্লাড লাইটের আলোয় নাথান লায়ন যখন জফরা আর্চারের ষষ্ঠ শিকার হয়ে ফিরছিলেন, তখন এমন কিছু কল্পনাই করা যায়নি। অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক টিম পেইনও নির্ঘাত ভাবতে পারেননি ১৭৯ রান করা অস্ট্রেলিয়া আজ এত বড় লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নামবে। ১১২ রানের লিড পেয়ে বিশ্ব রেকর্ডও করে ফেলেছে অস্ট্রেলিয়া। টেস্টে এত কম রানে অলআউট হয়ে এক শ ছাড়ানো লিড নিতে পারেনি কেউ।

টেস্টে প্রথম ইনিংসে ২০০ এর কমে অলআউট হয়ে এক শর বেশি রানের লিড পাওয়ার ঘটনাই ঘটেছে মাত্র একবার। সে কৃতিত্বও অস্ট্রেলিয়ার। ১৯৮১ সালে ইমরান খান ও সরফরাজ নওয়াজদের সামনে পার্থের উইকেটে ১৮০ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু ডেনিস লিলি ও টেরি অলডারম্যানও যে পার্থের উইকেটের ফায়দা নিতে জানেন। সবচেয়ে দ্রুত গতির বোলার জেফ থমসন বল হাতে নেওয়ার আগেই ৮ উইকেট হারিয়ে ফেলল পাকিস্তান। ২২তম ওভারে পাকিস্তান অলআউট হওয়ার আগে ৬২ রান তুলতে পেরেছিল। ১১৮ রানের লিড নেওয়া অস্ট্রেলিয়া পরে ম্যাচটি জিতেছিল ২৮৬ রানে।

টেস্টে প্রথম ইনিংসে কম সংগ্রহেও এক শ ছাড়ানো লিড নেওয়ার রেকর্ডের পরের দলটিও অস্ট্রেলিয়া। ডারউইনে মাত্র ২০৭ রানে অলআউট হওয়া অস্ট্রেলিয়া শ্রীলঙ্কাকে ধসিয়ে দিয়েছিল ৯৭ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাটিং ব্যর্থতা অব্যাহত ছিল সে টেস্টে। তবু অস্ট্রেলিয়ার ১৪৯ রানের জয়ে তা কোনো বাঁধা হতে পারেনি।

অস্ট্রেলিয়া যে সব সময় এমন রেকর্ড করে তা নয়, নিজেরাও এর শিকার হয়। ১৯৯৭ সালে পোর্ট এলিজাবেথে ২০৯ রানে অলআউট হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসটি এ যুগে অবিশ্বাস্য ঠেকতে পারে। ব্যাটিং লাইন আপের নয়ে শেন ওয়ার্ন নিয়ে নামা অস্ট্রেলিয়া ৭০ ওভার ৪ বল টিকেছিল প্রথম ইনিংসে। তবু ওয়াহ-টেলর সমৃদ্ধ সেই লাইনআপ মোটে ১০৮ রান তুলেছিল! ২৩ ওভার বল করে অ্যালান ডোনাল্ড দিয়েছিলেন ১৮ রান। একজন ফাস্ট বোলারের নামের পাশে এমন ফিগার অবিশ্বাস্য। মজার ব্যাপার, সে টেস্টও শেষ পর্যন্ত জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া! চতুর্থ ইনিংসে মার্ক ওয়াহর ১১৬ রানে ২ উইকেটের জয় পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। 

দ্বিতীয় ইনিংসে ৫২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলার পরও অতীত অভিজ্ঞতাই বলছে লিডস টেস্টে অস্ট্রেলিয়াকেই ফেবারিট ধরে নেওয়াই ভালো।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –