সোমবার   ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯   পৌষ ১ ১৪২৬   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১

৩৪

ই-সিগারেটে আসক্ত হয়ে পড়ছে রংপুরের শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত: ২৪ অক্টোবর ২০১৯  

অনলাইনে চটকদার ও নজরকাড়া বিজ্ঞাপনে প্রলুব্ধ হয়ে পড়ছে ‘ই-সিগারেটে’ আসক্ত হচ্ছে রংপুরের শিক্ষার্থী ও তরুণ প্রজন্ম।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সিগারেটের বিকল্প হিসেবে তারা ই-সিগারেটকে বেছে নিয়েছে।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী জানান, অনলাইনে বিভিন্ন ধরন ও ফ্লেভারের ই-সিগারেটের বিজ্ঞাপন দেখে শখের বশেই পছন্দমতো একটি অর্ডার করেন তিনি। প্রথমবার ভালো লাগায় আবার কিনেছেন, এভাবেই ধীরে ধীরে ই-সিগারেটে আসক্তি চলে আসে।

আসক্ত আরেক বেরোবি শিক্ষার্থী জানান, বন্ধুদের ই-সিগারেট সেবন করা দেখে আগ্রহ জাগে তার। একদিন দুইদিন সেবন করতে করতে আসক্ত হয়ে পড়েন তিনি।

সরেজমিনে দেখা গেছে, রংপুর অঞ্চলে শিক্ষার্থীদের বড় একটি অংশ ই-সিগারেটে আসক্ত হয়ে পড়েছে। আর এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে জেলা পরিষদ মার্কেট, সুপার মার্কেট, রাজা রামমোহন মার্কেট, রংপুর সিটি বাজার, লালবাগ বাজার, চক বাজারের ব্যবসায়ীরা দেদারসে বিক্রি করছে ই-সিগারেট।

‘ই-সিগারেট ধূমপানের অভ্যাস ছাড়তে সাহায্য করে’- এমন বিজ্ঞাপন ঝুলিয়ে শিক্ষার্থী ও তরুণদের আকৃষ্ট করছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা জানান, ই-সিগারেট ধূমপান ছাড়তে সাহায্য করে এমন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বরং এটি সাধারণ সিগারেটের চেয়েও ক্ষতিকর।

নিউরো মেডিসিন বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ আবু হানিফ জানান, ই-সিগারেটের প্রধান উপকরণ নিকোটিনের চেয়ে দ্রুত আসক্তি তৈরি করে। এটি ফুসফুসের বিভিন্ন অসুখ সৃষ্টি করতে পারে। সাধারণ সিগারেটের চেয়ে এটি ৩০ থেকে ৪০ গুণ বেশি ক্ষতিকর।

তামাক নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের রংপুর অঞ্চলের অ্যাডভোকেসি অফিসার তুহিন ইসলাম বলেন, ক্ষতিকর দিক তুলে ধরে ভারত-যুক্তরাষ্ট্রসহ ২৩টি দেশে ই-সিগারেট নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই আইনে ‘ই-সিগারেট’ সম্পর্কিত ধারা সংযুক্ত করে বাংলাদেশেও দ্রুত এটি নিষিদ্ধ করা প্রয়োজন।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –