ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ১ হাজার ৯৯৭ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ২৮৮ জন। মহামারি করোনাভইরাসের চিকিৎসায় শর্তসাপেক্ষে রেমডেসিভির ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। শুক্রবার এই অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) হেলথ কমিশনার স্টেলা কাইরিয়াকাইডস।
  • শনিবার   ০৪ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২০ ১৪২৭

  • || ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনায় আমাদের নেতাকর্মীরা মানুষের পাশে আছে- শেখ হাসিনা কুড়িগ্রামে ধরলার পানি বাড়ছে: বাঁধে ভাঙন তিন মাস পর ফিরলেন মোশাররফ করিম মৃত্যুর পর মানুষের ৯ আকাঙ্খা ও আফসোস যে কারণে ভারতকে সতর্ক করলো চীন
১২০

উজানের ঢলে হঠাৎ করেই তিস্তায় পানি বৃদ্ধি     

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৬ মে ২০২০  

উজান থেকে নেমে আসা তিস্তা নদীতে হঠাৎ করেই পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। গতকাল সোমবার দেশের সর্ববৃহৎ তিস্তা ব্যারাজ ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার(৫২.৬০ মিটার) ৮ মিটার নিচ দিয়ে (৫২.৫২ মিটার) পানি প্রবাহিত হচ্ছিল। এতে তিস্তা ব্যারাজের উজান ও ভাটি অঞ্চলের চরগ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় অনেক ফসলিজমি নদীর পানিতে তলিয়ে যায়। তবে তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট খুলে রাখায় ঢলের পানি ভাটি অঞ্চলে প্রবাহিত হচ্ছে।

অপর দিকে প্রতি বছরের ঈদের ছুটিতে সপ্তাহ জুড়ে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ডালিয়া অবস্থিত দেশের সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজের কমান্ড এলাকায় পর্যটক হিসাবে নারী পুরুষ শিশুদর্শনার্থীদের পদভারে মুখরিত হতো। মেলার মতো বসতো ভ্রাম্যমান খাবার হোটেল,দোকানপাট ও খেলাধুলার রাইটস। কিন্তু বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে এবার তিস্তা ব্যারাজ এলাকা ছিল পর্যটক শুণ্য। কিন্তু ভারত থেকে দুই হাতী এসে নদীতে খেলা করছে গুজব ছড়িয়ে লোক সমাগমের চেস্টা চালায় ভ্রাম্যামান ব্যবসায়ীরা।

তিস্তা পাড়ের লোকজন জানান, ভারী বৃস্টিপাত ও হঠাৎ ঢলে উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার কাছাকাছি চলে আসে। এতে নদীতে পানির প্রবাহ বেড়ে গেছে। চরখড়িবাড়ি,বাইশপুকুর,একতার চর এলাকাবাসী জানায় নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চরের নিচু এলাকার ফসলিজমি তলিয়ে যায়। আজ মঙ্গলবার দুপুরে পানি কমে আসায় বিপদ কেটে গেছে।
তিস্তা ব্যারাজের গ্রেডরিডার নুরুল ইসলাম জানান, তিস্তার পানি কখনো বৃদ্ধি কখনো কমে আসে। গত দুই দিন ধরে উজানের পানি বৃদ্ধি পেলেও আজ মঙ্গলবার বেলা ৩টা থেকে পানি কমতে শুরু করেছে।বর্তমানে তিস্তার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করার কোন লক্ষন নেই।

নীলফামারী বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর