• শনিবার   ০৮ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৪ ১৪২৮

  • || ২৪ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
আজ শেখ হাসিনার দেশে ফেরার দিন দেশে ৯০০ টন অক্সিজেন মজুদ আছে- স্বাস্থ্যমন্ত্রী খানসামায় করোনায় কর্মহীন ৩ হাজার পরিবারকে সহযোগিতা বালু উত্তোলনের ঘটনায় ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা কুড়িগ্রামে পরিবহণ শ্রমিকরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার

উত্তরের কৃষিশ্রমিকরা কাজের সন্ধানে ছুটছেন দক্ষিণের জেলাগুলোতে   

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০২১  

উত্তরের কৃষিশ্রমিকরা কাজের সন্ধানে ছুটছেন দক্ষিণের জেলাগুলোতে। এসব শ্রমিক পিকআপ ও মাইক্রোবাসে সরকারি সহযোগিতা এবং দলগতভাবে ধান কাটতে যাচ্ছেন বিভিন্ন জেলায়।

ঐসব শ্রমিক আগে খুলনাগামী মেইল ট্রেন, উত্তরা, আন্তঃনগর সীমান্ত, বরেন্দ্র ও রূপসা ট্রেনে করে কাজের সন্ধানে যেত। করোনার কারণে গত ৮ এপ্রিল থেকে সারা দেশে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় সড়ক পথে পিকআপ, কার, মাইক্রোবাস ও ট্রাক্টরযোগে ইরি-বোরো ধান কাটতে ছুটছেন দক্ষিণের জয়পুরহাট, সান্তাহার, আদমদীঘি, আত্রাই, নওগাঁ, নাটোর খুলনা, যশোরসহ বিভিন্ন জেলায়।

নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার কৃষক শাহজাহান আলী ১০ জনের দল নিয়ে ইরি-বোরো ধান কাটতে চলছেন সান্তাহারের উদ্দেশ্যে। ঐ এলাকায় মজুরি বেশি পাওয়া যায়। ধান পাকলেই গৃহকর্তা তাদের মোবাইলে ফোন দেন।

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জের আফছার আলী বলেন, কাজ না করলে সংসার চলবে কীভাবে। তাই করোনা লকডাউনেও বাবা-মা ও সন্তানের মুখের দিকে চেয়ে টাকা রোজগারের আশায় কাজ করতে যাচ্ছি। এখনো এলাকায় ধান কাটা শুরু হয়নি। টাকা রোজগারের উদ্দেশ্যে অন্যদের সঙ্গে আমিও ভাড়া করা মাইক্রোতে কাজের সন্ধানে যাচ্ছি।

সৈয়দপুর স্টেশন মাস্টার শওকত আলী জানান, করোনার কারণে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকায় সড়কপথেই এখন তাদের ভরসা। উত্তরের কৃষিশ্রমিকদের যাতায়াতের সহজ মাধ্যম ছিল রেলপথ।

সৈয়দপুর থানার ওসি আবুল হাসনাত খান বলেন, বিভিন্ন পয়েন্টে শ্রমিক যানবাহন থামিয়ে তারা প্রকৃত কৃষিশ্রমিক কি না, কাজের সন্ধানে কোথায় যাচ্ছেন? তা প্রতিনিয়ত তদারকি করা হচ্ছে। উত্তরের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিদিন শত শত কৃষিশ্রমিক সড়কপথে কাজের সন্ধানে দক্ষিণে যাচ্ছেন বলে জানা তিনি।

সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাসিম আহমেদ জানান, সৈয়দপুর থেকে ধাপে ধাপে কৃষিশ্রমিক পাঠানো হচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলায়। উপজেলা পরিষদ ও কৃষি বিভাগের সহযোগিতায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রমিকদের পাঠানো হচ্ছে।