ব্রেকিং:
ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা রংপুরগামী ‘রংপুর এক্সপ্রেস’ ট্রেনের ইঞ্জিনসহ সাতটি বগি লাইনচ্যুত হয়ে আগুন, অন্তত ১০ জন আহত

বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
উন্নয়ন মেলা ২০১৯ এর শুভ উদ্বোধন করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
৩১

‘উন্নয়নের সব প্রক্রিয়ায় যুবদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে’

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য মাত্রা (এসডিজি) অর্জনে উন্নয়নের সব প্রক্রিয়ায় যুবকদের অংশ গ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

বুধবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নে যুবদের অংশগ্রহণ-এসডিজি ফর দ্য ইয়ুথ, বাই দ্য ইয়ুথ’ বিষয়ক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়েয় গভর্নেন্স ইনোভেশন ইউনিট এ কর্মশালার আয়োজন করে।

স্পিকার বলেন, যুবকদের উদ্ভাবনী শক্তি কাজে লাগানোর সুযোগ করে দেয়া ছাড়া এসডিজির লক্ষ্যপূরণ করা সম্ভব হবে না। ‘কেউ পিছিয়ে থাকবে না’ এ শ্লোগানের বাস্তবায়নে যুবশক্তির ভূমিকা অনস্বীকার্য। যুবকদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে তাদের সৃজনশীল কর্মে অংশগ্রহণ, সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া ও উন্নয়নে যুবকদের সম্পৃক্ত করতে হবে। উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় যুবকদের কর্মপরিকল্পনাকে অন্তর্ভুক্ত করলে এসডিজি লক্ষ্য পূরণ সহজ হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি এবং পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)-এর সভাপতি ড. রুবানা হক বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ।

স্পিকার বলেন, যুবকদের শক্তি, প্রত্যাশা ও সামর্থ্যের মধ্যে সমন্বয় ঘটিয়ে তাদের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। এর মাধ্যমে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, মাদকের বিরুদ্ধে আন্দোলন, বৃক্ষরোপণ অভিযানের মত সামাজিক কর্মসূচিই শুধু নয়, বরং দুর্যোগ প্রশমন ও জলবায়ু পরিবর্তনের মত বৈশ্বিক বিষয়েও তারা অবদান রাখতে পারবে। এসডিজির লক্ষ্য পূরণে সরকারের পাশাপাশি বাংলাদেশ জাতীয় সংসদও কার্যকর ভূমিকা রাখছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ। যুবসমাজের উন্নয়নে বর্তমান সরকার ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। যুবসমাজকে যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তোলার জন্য বাজেটে বরাদ্দ বৃদ্ধি করা হয়েছে। এভাবে উন্নয়নের মূলধারায় তাদেরকে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে বর্তমান সরকার কাজ করছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মূখ্য সচিব নজিবুর রহমান বলেন, এসডিজি অর্জনে যুবদের অংশ গ্রহণ নিশ্চিত করতে সরকার দক্ষ ও প্রশিক্ষিত যুব শক্তি গড়তে ‘দক্ষতা উন্নয়ন (স্কীল ডেভলপমেন্ট )’ প্রকল্প গ্রহণ করেছে। তিনিও লক্ষভূক্ত সময়ে এসডিজি অর্জনে দেশের বিশাল যুব সমাজকে এর সব প্রক্রিয়া অংশ গ্রহণ নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর