বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
৩৯তম বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে ৪ হাজার ৪৪৩ জনকে স্বাস্থ্য ক্যাডারে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘট, ভোগান্তিতে জনগণ কবি বেগম সুফিয়া কামালের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যা বিষয়ক জাদুঘর স্থাপনে সহায়তা করবে রাশিয়া গুজবে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে: কাদের কাভার্ডভ্যান মালিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চালের দাম বাড়ানোর চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা: খাদ্যমন্ত্রী চার দিনের সরকারি সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঐতিহাসিক টেস্ট থেকে আঙুলের চোটের কারণে ছিটকে গেলেন সাইফ
৩৬১

একাদশ জাতীয় নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৮ নভেম্বর ২০১৮  

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা জানিয়েছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ করা হবে ২৩ ডিসেম্বর।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে এ তথ্য জানান তিনি।

তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৯ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ২২ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর, এবং ভোটগ্রহণ ২৩ ডিসেম্বর।

নির্বাচনে সব দল অংশগ্রহণ করবে বলে বক্তৃতায় আশা প্রকাশ করেন সিইসি।

তিনি জানান, সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। সব দল নির্বাচনে এলে অনিয়মের সুযোগ থাকবে না বলে মনে করেন সিইসি। রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে পারস্পরিক কোনো বিরোধ থাকলে তা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করার তাগিদ দেন সিইসি।

গণতন্ত্রের স্বার্থে সব দলকে নির্বাচনে অংশ গ্রহণের আহ্বান জানান সিইসি। সেই সঙ্গে প্রশাসনকে সহায়তা দিতে প্রয়োজনে মাঠে থাকবে সশস্ত্র বাহিনী।

তফসিল ঘোষণায় খুশি হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামী লীগের আনন্দ মিছিল। সেই সঙ্গে তফসিল ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছে জাতীয় পার্টি।

তফসিল ঘোষণায় সিইসির ভাষণ বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারসহ বেশ কয়েকটি বেসরকারি টিভি চ্যানেল প্রচার করে।

জনগণের হয়ে সব রাজনৈতিক দলকে অংশ নিয়ে গণতন্ত্রের ধারা ও উন্নয়নের গতিকে সচল রাখার আহ্বান জানান। তিনি নির্বাচন পরিচালনায় সবার সহযোগিতাও কামনা করেন।

নূরুল হুদা আশ্বস্ত করে বলেন, নির্বাচনী প্রচারণায় সব প্রার্থী ও দল সমান সুযোগ পাবে। সবার জন্য অভিন্ন আচরণ ও সমান সুযোগ সৃষ্টির অনুকূলে নির্বাচনে ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ নিশ্চিত করা হবে।

এ সময় তিনি নির্বাচন অনুষ্ঠানে কমিশনের সার্বিক প্রস্তুতি ছাড়াও ইভিএম ব্যবহারের কথাও জানান।

এর আগে বেলা ১১টায় ভোটের তারিখ চূড়ান্ত করতে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের অফিসে বৈঠক হয়। কমিশনের ৩৯তম বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছাড়াও নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, বেগম কবিতা খানম ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদত হোসেন চৌধুরী ও নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

গত ৩১ অক্টোবর থেকে নির্বাচনের ক্ষণ গণনা শুরু হয়। ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত বর্তমান সংসদের মেয়াদ রয়েছে। ওই সময়ের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা আছে সংবিধানে। এজন্য গত ১ নভেম্বর রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাত করে নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পর্কে জানিয়েছে ইসি।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর