ব্রেকিং:
শহীদদের নামে রংপুরের সড়কগুলোর নামকরণের দাবি উত্তরের ফসলি জমি গিলে খাচ্ছে তামাক আজ ২০ ফেব্রুয়ারি ‘বিশ্ব সামাজিক ন্যায়বিচার দিবস’ মহান শহীদ দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকাকে পাঁচটি সেক্টরে বিভক্ত করে তিন ধাপের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে র‌্যাব নারী বিশ্বকাপ ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ: পাকিস্তানকে ৫ রানে হারালো বাংলাদেশ

শুক্রবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ৮ ১৪২৬   ২৬ জমাদিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শুক্রবার অমর একুশে গ্রন্থমেলার দ্বার খুলবে সকাল ৮টায় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচন ১১ ও ১২ মার্চ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই ডাকাত নিহত লালমনিরহটের হাতীবান্ধা উপজেলায় ষাটোর্ধ্ব এক বৃদ্ধা মাকে মারধর করে ঘর থেকে বের করে দিয়েছেন ছেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অমর একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রাক্কালে ২০ ব্যক্তি এবং এক প্রতিষ্ঠানের মাঝে ‘একুশে পদক-২০২০’ প্রদান করেছে
৭৮

‘ওজন ছিল ৯৫ কেজি, আমাকে পাত্তাই দিত না কেউ’

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ফিল্মি পরিবারের সন্তান হয়েও নিজের কঠোর স্ট্রাগল করার কথা জানিয়েছেন সোনাক্ষী সিনহা। ইন্ডাস্ট্রিতে একটা কথা রটে, বাইরের যারা আছেন তাদের পরিশ্রমটা একটু বেশি করতে হয়। কিন্তু বলিউডের নামী-দামী অভিনেত্রী-অভিনেতাদের ছেলে-মেয়েদেরও লড়াই করতে হয়েছে এবং সেটাও অন্যদের চেয়ে কোন অংশে কম নয়। নেপোটিজম থেকে বডি শেমিং সব বিষয়টা নিয়েই কথা শুনতে হয়েছে সোনাক্ষীকে।

এই বিষয়ে সম্প্রতি এক টক শো’তে তিনি জানান,”আমাকে অনেকে অপমান করেছিল। আমি খুবই মোটা ছিলাম, যার জন্য নানা কটূ কথা শুনতে হয়েছিল। আমার ওজন ছিল ৯৫ কেজি, অতিকায় মোটা একজন মানুষ ছিলাম আমি। কিন্তু আমি কোনওদিন বসে থাকতাম না চুপচাপ। কিন্তু তাও ছেলেরা নানা কথা বলত, রাগাতো। অতিরিক্ত মোটা শরীরের জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনও খেলা কিংবা নাটকে অংশগ্রহণ করতে দিত না। আমাকে পাত্তাই দিত না কেউ।”

সোনাক্ষী আরও জানান,”আমার মনে আছে, একবার কলেজে বার্ষিক অনুষ্ঠানে ফ্যাশন শো হয়েছিল। আমি চেয়েছিলাম মডেল হয়ে র‍্যাম্পে হাঁটতে। কিন্তু একটি রোগা মেয়ে বলেছিল, তুমি হাঁটতে পারবে না, কারণ মঞ্চ তোমার জন্য ছোট হয়ে যাবে। হয়ত মঞ্চটাই ভেঙে পড়ে যাবে। খুব খারাপ লেগেছিল সেদিন।”

তিনি আরও জানান,”সালমান খানের সাথে দাবাং সিনেমাতে ডেবিউ করেও, মোটা হওয়ার জন্য নানা কথা শুনতে হয়েছিল। আমি কিন্তু থেমে থাকিনি। দাবাং-এর জন্য প্রায় ২০ কেজি ওজন কমাই আমি। এটা আমার লড়াই ছিল নিজের সঙ্গেই। তারপর ৩০ কেজি ওজন কমাই আমি। কিন্তু আমার এই শারীরিক গঠন তখন দর্শকদের ভালো লাগে। কিন্তু দুঃখের বিষয় বলিউডে ও মিডিয়াতে আমার নামের পাশে 'মোটা' বসিয়ে দেওয়া হল। আমার এই কঠোর পরিশ্রমের কোন মূল্যই দেওয়া হয়নি। তখন খুবই খারাপ লেগেছিল আমার।”

সোনাক্ষী আপাতত ব্যস্ত, সালমানের সঙ্গে ‘দাবাং-৩’ সিনেমার শ্যুটিং নিয়ে। চলতি বছরেই মুক্তি পাবে এই সিনেমাটি।