ব্রেকিং:
নবম শ্রেণি থেকেই বিষয় ভিত্তিক বিভাজন না করার পক্ষে প্রধানমন্ত্রী পেঁয়াজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত সরকার আগামী বছর থেকেই বাংলাদেশ থেকে ট্রেনে চড়ে যাওয়া যাবে ভারতের পর্যটনখ্যাত রাজ্য দার্জিলিংয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে চীনা প্রেসিডেন্টের চিঠি

বৃহস্পতিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬   ০৩ রজব ১৪৪১

সর্বশেষ:
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে ওমরাহ যাত্রী ও মসজিদে নববী ভ্রমণকারীদের জন্য সৌদি আরবে প্রবেশ সাময়িকভাবে স্থগিত পদকে এগিয়ে বেগম রোকেয়ার মেয়েরা তাবলীগ জামাতের দুই গ্রুপে সংঘর্ষের আশঙ্কা, ইজতেমা বন্ধ নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপঃ টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ পার্বতীপুরে মামলার বাদীকে প্রাণনাশের হুমকি! শপথ গ্রহণ করলেন ঢাকার নবনির্বাচিত মেয়র তাপস-আতিকুল
৬৩

কাহারোল-বীরগঞ্জসহ সকলকে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এমপি গোপাল

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৮ অক্টোবর ২০১৯  

অশ্রুসজল নয়নে ভক্তবৃন্দ বিদায় জানালেন দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গাকে। প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো আজ বাঙালী হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় আয়োজন শারদীয় দুর্গোৎসব। দেবী দুর্গা ফিরে যাবেন ঘটকে। মহালয়ার মধ্য দিয়ে যে দেবীপক্ষের সূচনা হয়েছিল, বিসর্জনের মধ্য দিয়ে তার সমাপন ঘটল। আগামী শরতে আবার ফিরে আসবেন আনন্দময়ী দেবী দুর্গা বাঙালী হিন্দুর ঘরে ঘরে, এমন প্রত্যাশা নিয়েই মাকে বিদায় জানালেন ভক্তরা।

বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায়ের এই উৎসব সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন হওয়ায় দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল তাঁর নির্বাচনী এলাকা কাহারোল-বীরগঞ্জসহ দেশবাসীকে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সেই সাথে প্রতিবারের ন্যায় এবারও তাঁর নির্বাচনী এলাকার বিভিন্ন পুজা মন্ডপ পরিদর্শনও করেছেন এমপি গোপাল।

তিনি শুভেচ্ছা বার্তায় বলেছেন, বাঙ্গালী হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় আয়োজন শারদীয় দূর্গোৎসব। দুর্গোৎসব ধর্মীয় উৎসব হলেও, তা সর্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে। সম্প্রদায়গত বিভেদের উর্ধে উঠে মানুষকে এক পরম আনন্দের সোপানে দাঁড় করিয়েছে। শারদীয় দুর্গোৎসব সবার জন্য উন্মুক্ত। মহালয়া থেকে শুরু করে দেবী দুর্গার বিজয়া দশমীর আনন্দকে সবাই ভাগাভাগি করে নিতে আগ্রহী হয়ে ওঠেন। কারণ, বাঙালী জাতি নিরম্বর উন্মুক্ত উৎসবমুখর পথে চলতে পছন্দ করে।

এমপি গোপাল বলেছেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার- এই অধিকার সরকার নিশ্চিত করেছে। এ দেশে ধর্মীয় সৌহার্দ্যসম্প্রীতি বজায় রয়েছে। ফলে  সবাই স্বাধীনভাবে নিজ নিজ ধর্ম পালন করছেন।

এই বিভাগের আরো খবর