ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ২ হাজার ১৯৭ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৪৮৯ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৭২ হাজার ১৩৪ জন।
  • বুধবার   ০৮ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৪ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪১

সর্বশেষ:
সাড়ে ১২ কোটির বেশি মানুষ পাবে ১৯ প্রণোদনা প্যাকেজের সুবিধা উওরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও বাড়ছে ভাঙনের ভয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ছাড়ার আনুষ্ঠানিকতা শুরু করল যুক্তরাষ্ট্র করোনা জয় করলেন অভিনেতা প্রবির মিত্র বিএনপি শুধু গর্তের মধ্যে ঢুকে লম্বা লম্বা কথা বলে- খাদ্যমন্ত্রী
৯৭

কুড়িয়ে পাওয়া শিশুটি মায়ার বাধঁনে এমপির কোলে

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০১৯  

পঞ্চগড়ে রাস্তা থেকে কুড়িয়ে পাওয়া এক মাস বয়সী ফুটফুটে কন্যা শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর শনিবার দুপুরে দেখতে যান  পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য মজাহারুল হক প্রধান। পিতৃস্নেহে আঁকড়িয়ে ধরে বেশ কিছু সময় তিনি শিশুটিকে কোলে নিয়ে জড়িয়ে রাখেন। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, শিশুটিকে দত্তক নেওয়ার জন্য অনেক নিঃসন্তান দম্পতি আগ্রহী। যদি তার বাবা মাকে পাওয়া না যায় তাহলে আইনি প্রক্রিয়ায় শিশুটিকে হস্তান্তর করা হবে।

তিনি আরো বলেন, আমি চাই শিশুটি এমনভাবে বেড়ে উঠুক যেন সে বড় হয়ে অভিভাবকের অভাববোধ করতে না পারে। এদিকে শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর থেকেই নিঃসন্তান দম্পতিরা ভির করছে। পঞ্চগড় শহরস্থ জালাসী এলাকার সুমন নামের এক সৌদি প্রবাসী (নিঃসন্তান) ও তার স্ত্রী শিশুটিকে দত্তক নেওয়ার জন্য ঘটনার পর থেকেই হাসপাতালে দিনাতিপাত করছেন এবং সার্বক্ষণিক শিশুটির পাশে থেকে পিতা-মাতার দায়িত্ব পালন করছেন ।

তিনি বলেন, আমি ১৪ বছর আগে বিয়ে করেছি এতদিনেও আমার স্ত্রীর কোন সন্তান হয়নি, আমি শিশুটিকে নিজের সন্তানের মত লালন-পালন করতে চাই।

প্রসঙ্গত, ১৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রাতে পঞ্চগড় জেলা শহরের পৌর এলাকার কামাত পাড়ায় রাস্তার পাশে পরিত্যক্ত স্থান থেকে কন্যা শিশুটিকে উদ্ধার করে সদর থানা পুলিশ। বর্তমান শিশুটিকে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালের বিশেষ শিশু পরিচর্যা কেন্দ্রে রাখা হয়েছে।

জানা যায়, পঞ্চগড় সদর উপজেলার অমরখানা ইউনিয়নের ভিতরগর এলাকার গৃহবধূ রিমু আক্তার দুই বছর আগে পরকীয়ার জের ধরে দিনাজপুরের পার্বতীপুর এলাকার এক ট্রাক চালকের হাত ধরে উধাও হন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূ তার নানাবাড়ি জেলা শহরের কামাতপাড়া এলাকায় এসে পেয়ারা বেগম নামে আরেক গৃহবধূকে তার একমাস বয়সী কন্যা শিশুটিকে দত্তক নিতে বলেন। এতে পেয়ারা বেগম অস্বীকৃতি জানালে পেয়ারা বেগমের প্রতিবেশী অশোক চন্দ্র মদকের বাড়ির একটি গলিতে শিশুটিকে রেখে পালিয়ে যান মা রিমু আক্তার। রাতে পরিত্যক্ত অবস্থায় শিশুটিকে পরে থাকতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। বর্তমানে শিশুটি সম্পুর্ণ  সুস্থ রয়েছে ।

নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর