• শনিবার   ০৮ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৪ ১৪২৮

  • || ২৪ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
আজ শেখ হাসিনার দেশে ফেরার দিন দেশে ৯০০ টন অক্সিজেন মজুদ আছে- স্বাস্থ্যমন্ত্রী খানসামায় করোনায় কর্মহীন ৩ হাজার পরিবারকে সহযোগিতা বালু উত্তোলনের ঘটনায় ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা কুড়িগ্রামে পরিবহণ শ্রমিকরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার

খালেদার চিকিৎসা নিয়ে আবারো লুকোচুরি শুরু করেছে বিএনপি

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩ মে ২০২১  

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে লুকোচুরি বিএনপিতে নতুন কিছু নয়। গত কিছুদিন ধরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। তবে এ বিষয়ে বিএনপি নেতাদের অন্ধকারে রাখা হচ্ছে। এমনকি বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে কোনো কিছু জানেন না।

খালেদা জিয়ার পারিবারিক সূত্রগুলো বলছে, রাজনৈতিক বাতাবরণের বাইরে তারা খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়টি দেখতে চাইছেন। এটি যদি রাজনীতিকরণ করা হয়, তাহলে তার জন্য খারাপ হবে।

খালেদা জিয়ার পরিবারের এক সদস্য বলেন, এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসার পর খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার চেষ্টা করা হতে পারে। কিন্তু রাজনৈতিক বলয়ের মধ্যে যদি তার চিকিৎসার বিষয়টি থাকে, তাহলে সরকার তাকে অনুমতি নাও দিতে পারে। আর এ বাস্তবতায় খালেদা জিয়ার পরিবার তার চিকিৎসার বিষয়টিকে আলাদা করে দেখছে।

এটি বিএনপির মধ্যে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে এবং নেতাকর্মীরা মনে করছেন খালেদা জিয়াকে বিএনপি থেকে পৃথক করার জন্য তার পরিবার দায়ী।

যদি খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক ছেদ হয়, তাহলে দলটিতে বড় ধরনের গণপদত্যাগের ঘটনা ঘটতে পারে। তবে এসব অস্থিরতার শেষ কোথায়, তা নির্ভর করবে করোনা পরিস্থিতির পর বিএনপির নিজেদের মধ্যকার বৈঠক এবং রাজনৈতিক কর্মসূচির ওপর।

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কেমন জানতে চাইলে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আপনারা ওনার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেন, উনারাই এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবেন।

জানতে চাইলে রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীরা বলেন, শুরু থেকেই খালেদা জিয়াকে নিয়ে রাজনীতি করছে বিএনপি। দলের ক্ষমতা করায়ত্ত করার জন্য তারই জ্যেষ্ঠ পুত্র তারেক রহমান মূলত এর জন্য দায়ী। ক্ষমতা দখলের নেশায় দিন দিন খালেদা জিয়াকে রাজনীতির পুতুলে পরিণত করেছেন তিনি।