ব্রেকিং:
রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) পিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩৯ দশমিক ৩৬ শতাংশ। শুক্রবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ একেএম নুরুন্নবী লাইজু।
  • শনিবার   ১৫ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ৩০ ১৪২৭

  • || ২৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
শোক দিবস উপলক্ষে চারটি বিশেষ ডিজাইনের ই-পোস্টার প্রকাশিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাতে আ`লীগের বিশেষ ওয়েবিনার ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার হলেন বিক্রম দোরাইস্বামী দায়িত্ব পালনে কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অপেশাদার আচরণের অভিযোগ পেলে ছাড় দেয়া হবে না: এসপি বিপ্লব এখনো কোনো পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়নি: শিক্ষা মন্ত্রণালয়
৪৭৪

চবির `শাটল ট্রেন` ফেব্রুয়ারীতেই

নীলফামারি বার্তা

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০১৮  

শাটল ট্রেন আর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় যেন একসূত্রে গাঁথা। এই শাটল ট্রেনকে ঘিরেই রচিত হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাসি-কান্না, প্রেম-ভালোবাসা ও আনন্দ-বেদনার মহাকাব্য। এই মহাকাব্যের কিছু সময়, কিছু ঘটনা আর অনুভূতি নিয়ে এবার নির্মিত হচ্ছে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘শাটল ট্রেন’।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ডিসেম্বরের মধ্যেই 'শাটল ট্রেন' চলচ্চিত্রটির নির্মাণ কাজ শেষ হতে যাচ্ছে। ১৩ ফেব্রুয়ারি মুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে চলচ্চিত্রটি।

রাজধানীর লালমাটিয়ায় চারুপ্রাঙ্গণ আর্ট গ্যালারীতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে চবির ২০ তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী মো: কামরুল আহসানের সভাপতিত্বে চলচ্চিত্রের সহকারী পরিচালক রিফাত মোস্তফা লিখিত বক্তব্যে এই তথ্য জানান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৬তম ব্যাচের ছাত্রী মোহসেনা ঝর্ণার ‘বহে সমান্তরাল’ গল্প অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে চলচ্চিত্রটি। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করছেন ৩৪তম ব্যাচের চারুকলা বিভাগের সাবেক ছাত্র ও চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রদীপ ঘোষ। এতে প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন ৩৪তম ব্যাচের ফিন্যান্স বিভাগের রিফাত মোস্তফা।

চলচ্চিত্রটিতে থাকছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, প্রেম-রসায়ন, বিচ্ছেদ ও শিক্ষাঙ্গনের নানা বৈচিত্র্যপূর্ণ কাহিনী। এতে আরো থাকছে ছয়টি মৌলিক গান । যার গীতিকার এবং সুরকার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। এছাড়াও ট্রেনের বগি ভিত্তিক বেশ কয়েকটি গানের অংশ রয়েছে এতে। চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীরা।

এই চলচ্চিত্রটি একযোগে সারা দেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শীত হবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীগণ ক্যাম্পাসে ৭ দিনের প্রদর্শনী উপভোগ করার সুযোগ পাবেন। দেশের স্বনামধন্য কয়েকটি টেলিভিশনে চলচ্চিত্রটির প্রিমিয়ার তো আছেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের অর্থায়নে নির্মিত হচ্ছে চলচ্চিত্রটি।

শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর