ব্রেকিং:
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরো দুই হাজার ৫৪৫ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৪৭ হাজার ১৫৩ জনে দাঁড়িয়েছে। একই সময়ে মারা গেছেন আরো ৪০ জন। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৬৫০ জন। একদিনের আক্রান্ত ও মৃত্যুর পরিসংখ্যানে এটিই সর্বোচ্চ। ট্রেনের টিকিট শুধু অনলাইনেই বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। বসলো পদ্মাসেতুর ৩০তম স্প্যান: দৃশ্যমান সাড়ে ৪ কিলোমিটার গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ছয়জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে দুইজন স্বাস্থ্যকর্মী, তিনজন গার্মেন্টসকর্মী ও একজন মাওলানা।
  • রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনা রোধে জনপ্রতিনিধিদের আরো সম্পৃক্তের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব অফিস খুলছে আজ করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানাতে চলবে মোবাইল কোর্ট পঙ্গপালের কারণে বিপর্যয়ের মুখে ভারত-পাকিস্তান দেশেই করোনাভাইরাসের পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্সিং সম্পন্ন আদিতমারীতে সব করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন
৫৯

জেএসসি-জেডিসিতে অংশ নেবে ২৬ লাখ শিক্ষার্থী

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৯ অক্টোবর ২০১৯  

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ২ নভেম্বর। এ পরীক্ষায় অংশ নেবে মোট  ২৬ লাখ ৬১ হাজার ৬৮২ শিক্ষার্থী।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, চলতি বছরের ২ নভেম্বর থেকে সারাদেশে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু হবে। এ পরীক্ষায় মোট ২৬ লাখ ৬১ হাজার ৬৮২ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। 

২০১০ সালে সর্বপ্রথম জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যাপক পরিমানগত ও গুণগত পরিবর্তন হয়েছে বলেও দাবি করেন শিক্ষামন্ত্রী। 

তিনি বলেন, ২০১০ সালে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা যখন প্রথম শুরু হয় তখন মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১৪ লাখ ৯২ হাজার ৮০২ জন। যা ২০১৯ সালে এসে দাঁড়িয়েছে ২৬ লক্ষাধিক। 

শিক্ষাকে তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ায় সরকারের উদ্যোগ এবং সংশ্লিষ্ট সবার আন্তরিক প্রচেষ্টাই এ সফলতার প্রধান কারণ বলেও দাবি করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে গভীর আগ্রহ ও উদ্দীপনা সৃষ্টি করেছে এ পরীক্ষা। তাছাড়া সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে নিবিড় পর্যবেক্ষণের আওতায় নিয়ে আসার ফলে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে। শিক্ষার প্রতি শিক্ষার্থীদের মনোযোগ বৃদ্ধি পায় এবং শিক্ষার্থীরা অধিকতর আত্মবিশ্বাসী ও আত্মনির্ভরশীল হয়ে ওঠে।

শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর