ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ২ হাজার ১৯৭ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৪৮৯ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৭২ হাজার ১৩৪ জন।
  • বুধবার   ০৮ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৪ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪১

সর্বশেষ:
সাড়ে ১২ কোটির বেশি মানুষ পাবে ১৯ প্রণোদনা প্যাকেজের সুবিধা উওরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও বাড়ছে ভাঙনের ভয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ছাড়ার আনুষ্ঠানিকতা শুরু করল যুক্তরাষ্ট্র করোনা জয় করলেন অভিনেতা প্রবির মিত্র বিএনপি শুধু গর্তের মধ্যে ঢুকে লম্বা লম্বা কথা বলে- খাদ্যমন্ত্রী
১০৯

জেনে নিন করোনাভাইরাস সম্পর্কিত এসব সুখবর

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২০  

বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এই রোগে মৃত্যুবরণ করার সংখাটিও গিয়ে পৌঁছেছে ১৬ হাজারের কোঠায়।

তবে আক্রান্ত তিন লাখ ৬৬ হাজার ৯৫৬ জনের মধ্যে এক লাখ এক হাজার ৬৫ জন সুস্থ হয়েছেন। এরই মধ্যে নিশ্চয় সবাই জেনে গেছেন করোনাভাইরাস কী? তবে কেউ কি করোনা সম্পর্কিত কয়েকটি সুখবর জানতে চান? জেনে নিন-

ওষুধ আসছে 

করোনাভাইরাসে প্রথম ব্যক্তি আক্রান্ত হওয়ার পর এক সপ্তাহের মধ্যেই ভাইরাসটি চিহ্নিত করা হয়। এর মানে বিজ্ঞানীরা কিছুদিনের মধেই এ নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করে দেয়। নতুন খবর হলো এই ভাইরাস প্রতিরোধী টিকা আসছে। মানুষের উপর এই টিকার প্রথম পরীক্ষা এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে। যদিও ২০২১ সালে আগে আমরা এটি হাতে পাবো না। তবে বিশ্বের অন্তত আটটি দল কাজ করছে, যেন একটি ওষুধ তৈরি করা যায়। 

বেশিরভাগই সুস্থ হয়েছেন

এরই মধ্যে আপনারা হয়ত জেনেছেন যাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত তারা এই রোগে আক্রান্ত হলেও সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আক্রান্তদের মধ্যে অন্তত ৭০ শতাংশ রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আর যারা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হবেন তাদের ৮০ শতাংশের মধ্যেই হালকা বা মাঝারি উপসর্গ দেখা দিবে।

আরোগ্যের লক্ষণ

চীন, যেখান থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে ১৮ মার্চের সেখানে দুই একজনের বেশি আর কেউ আক্রান্ত হননি। দক্ষিণ কোরিয়াতেও নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা কমছে।

তারপরও ভাইরাস থেকে যেতে পারে

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যানুযায়ী, যেসব দেশ দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছে সেখানে নিয়ন্ত্রণে আছে। যারা দেরিতে ব্যবস্থা নিয়েছে তাদের এলাকাতে ছড়াচ্ছে ব্যাপক হারে।

আপনিও সাহায্য করতে পারেন!

এই মুহূর্তে হাত পরিষ্কার রাখা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার। আর সংক্রমণ ঠেকাতে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখাও কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ।

সূত্র: বিবিসি

স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর