শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
সশস্ত্র বাহিনীর বীর শহীদদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বিএনপি এখন গুজবের রাজনীতি করে: কাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাসে পরিবহন-মালিক শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার সশস্ত্র বাহিনী দিবস আজ
১৫

টাকা আত্মসাতের অভিযোগে লালমনিরহাটের আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংক ঘেরাও

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০১৯  

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার চাপারহাট আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংক কর্মকর্তা কর্তৃক গ্রাহকদের অর্থ আত্নসাৎ এর অভিযোগে ব্যাংক ঘেরাও করেছে স্থানীয় গ্রাহকরা। এসময় ব্যাংক কর্মকর্তাদের অবরুদ্ধ করে রেখেছে স্থানীয়রা।

এ ঘটনায় গতকাল বুধবার(১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাড়ে ৮ টার দিকে উপজেলার চাপারহাটের আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংক শাখায় গ্রাহক ও এলাকাবাসী ব্যাংকটি ঘেরাও করে বিক্ষোভ মিছিল করে।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন স্থানের গ্রাহকরা চাপারহাটের আজিজ কো-অপারেটিভ কমার্স অ্যান্ড ফাইন্যান্স ক্রেডিট সোসাইটি ব্যাংকের শাখায় (সঞ্চয়) টাকা জামা রাখতেন। বুধবার বিকেল ৪টার দিকে কয়কজন নারী, আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংকে টাকা তুলতে আসলে, ওই নারী গ্রাহকদের জানানো হয়, তাদের এ্যকাউন্টে কোন টাকা নেই। একাউন্টে কোন টাকা নেই, এমনটাই জানান আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংকের ব্যবস্থাপক ইকবাল আজম। বিষয়টি গ্রাহকদের মধ্যে জানাজানি হলে, স্থানীয় অন্যান্য গ্রাহকরাও ব্যাংকে তাদের টাকা উঠিয়ে নিতে যায়। কিন্তু তাদেরও একই কথা জানান সেই কর্মকর্তা। এ সময় ব্যাংকে গ্রাহকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে, গ্রাহকরা আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংক ঘেরাও করে, ব্যাংক স্টাফদের অবরুদ্ধ করে রাখেন। রাত সাড়ে ৭টার দিকে, আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংকের ব্যবস্থাপক ইকবাল আজম পালানোর চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়রা তাকে আটক করে ব্যাংকে তালা বন্ধ করে রাখে।

এদিকে ব্যাংকে আর্থিক লেনদেন নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে, এমন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। ওই সময় উপস্থিত কালীগঞ্জ থানার তদন্ত (ওসি) ফরহাদ মন্ডলের কাছে টাকা ফেরত দেয়ার দাবি জানান সকল গ্রাহক। গ্রাহকদের সকল টাকা ফেরতসহ, দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন পুলিশের কাছে তারা। ভুক্তভোগী সুমন্ত রায়, শরিফুল ইসলাম, মিন্টু মিয়াসহ অনেকেই জানান, গত চার মাস থেকে আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংকের শাখার ব্যাংক কর্মকর্তারা টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলেও দেন না। সে কারণে বেশ কয়েকজন মিলে এ্যাকাউন্ড চেক করতে গেলে, দেখা যায় হিসাব নাম্বারে কোন টাকা নেই।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) আরজু মোঃ সাজ্জাত ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ব্যাংকে আর্থিক লেনদেন নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করার খবর পেয়ে ব্যাংকের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ সদস্যদের সেখানে পাঠানো হয়েছে।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –