• বুধবার   ২৮ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১৩ ১৪২৭

  • || ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সর্বশেষ:
কর্মকর্তাদের বদলির কারণে উন্নয়ন যেন বাধা না পায়: প্রধানমন্ত্রী প্রবাসীদের পুনর্বাসনে ৭০০ কোটি টাকার তহবিল গঠন করবে সরকার রেলে গতি বাড়াতে যুক্ত হচ্ছে ১১শ` কোটি টাকার বগি ও ইঞ্জিন দেশের মানুষকে খাদ্য নিরাপত্তা দিয়ে স্বস্তিতে রাখতে চায় সরকার দেশের সব নাগরিককে বিনামূল্যে করোনা ভ্যাকসিন দেবে সরকার

‘ডিজিটাল প্রযুক্তি সেবা এখন মানুষের জীবনের লাইফ লাইন’

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ অক্টোবর ২০২০  

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ডিজিটাল সংযুক্তি অবকাঠামো উন্নয়নের ফলে দেশের মানুষের জীবনযাত্রার অভাবনীয় রূপান্তর হয়েছে। ডিজিটাল প্রযুক্তি সেবা এখন মানুষের জীবনের লাইফ লাইনে পরিণত হয়েছে। 

মঙ্গলবার বাংলাদেশে নিযুক্ত নরওয়ের রাষ্ট্রদূত এসপেন রিক্টার সেন্ডসানের সঙ্গে এক ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ ও নরওয়ের মধ্যকার বিদ্যমান চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তুলে ধরে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন খাত বিশেষ করে টেলিযোগাযোগ খাত বিনিয়োগের জন্য অন্যতম একটি থ্রাস্ট সেক্টর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহীত বিনিয়োগ বান্ধব নীতি কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশে নরওয়ের অধিকতর বিনিয়োগে এবং আগামী দিনগুলোতে বাংলাদেশ ও নরওয়ের মধ্যকার বিদ্যমান সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে রাষ্ট্রদূত ভূমিকা রাখবেন বলে মন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশের ডিজিটালাইজেশনে বিশেষ করে ডিজিটাল অবকাঠামো উন্নয়নে সরকারের গৃহীত কর্মসূচির প্রশংসা করেন রাষ্ট্রদূত এসপেন রিক্টার সেন্ডসান। তিনি বলেন, সুন্দরবনে প্রত্যন্ত দুর্গম অঞ্চলেও মানুষ ডিজিটাল টেলিকম সেবা পাচ্ছে। কোভিডের সময়ে এখানকার মানুষের জীবন থেমে থাকেনি। শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে ক্লাস করছে, ঘরে বসে চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে ও ডিজিটাল বাণিজ্য প্রসার লাভ করছে। 

নরওয়ের টেলিকম প্রতিষ্ঠান জিপি বাংলাদেশের ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার অগ্রগতির সঙ্গে অংশীদার হতে পারায় তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

মোস্তাফা জব্বার দেশের টেলিকম অবকাঠামো উন্নয়নে অংশীদার হওয়ার জন্য টেলিনরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, ভয়েস কলের মাধ্যমে দেশে টেলকোর যাত্রা শুরু হলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদ জয় এর দিক-নির্দেশনায় বাংলাদেশে টু-জি থেকে থ্রি-জি, ফোর-জি চালু হয়েছে। আমরা ফাইভ-জি রূপান্তরের যাত্রা এরইমধ্যে শুরু করেছি।