ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে পাঁচ হাজার ৭ জনে। এছাড়া, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১ হাজার ৫৫৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। দিনাজপুরে গত ২৪ ঘন্টায় ৯ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩২৮ জনে। মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ।
  • বুধবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৭ ১৪২৭

  • || ০৫ সফর ১৪৪২

সর্বশেষ:
রংপুরের বহুল আলোচিত দুই বোন হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ খালিদ মাহমুদ চৌধুরীর রোগমুক্তি কামনায় বীরগঞ্জে দোয়া মাহফিল নীলফামারীতে কাঁটাতার কেটে চিলাহাটি-হলদিবাড়ি জুড়ছে রেল লাইন কুড়িগ্রামে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদন্ড র‌্যাবের অভিযানে নীলফামারীতে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার
১০৪

ডোমারে সাড়ে ৯ লাখ টাকা চুরির রহস্য উৎঘাটন করেছে পুলিশ 

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট ২০২০  

অবশেষে নীলফামারীর ডোমার উপজেলার জোড়াবাড়ি ইউনিয়নের মির্জাগঞ্জ ময়দান পাড়া এলাকার চাতাল ব্যবসায়ী মতিয়ার রহমান দুলুর বাড়ির সকলকে অজ্ঞান করে নয় লাখ ২৫ হাজার টাকা চুরির রহস্য উৎঘাটন করেছে পুলিশ।

পাঁচ মাস পর ওই চুরির ঘটনার গতকাল বুধবার(২৬ আগষ্ট/২০২০) রাতে মূল পরিকল্পনাকারী ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শিংগিয়া এলাকার তমিজ উদ্দিনের ছেলে সাজ্জাদ হোসেনকে(৩৫) তার বাড়ি হতে ডোমার থানার পুলিশ গ্রেফতার করে। তাকে গ্রেফতারে নেতৃত্ব দেন ডোমার থানার পরিদর্শক বিশ্বদেব রায় ও এসআই আজম প্রধান সহ পুলিশ সদস্যরা। 
গ্রেফতারকৃত সাজ্জাদ সম্পর্কে মতিয়ার রহমান দুলুর খালাতো ভাই। সাজ্জাদ চোরদের সকল তথ্য দেয় ও নিজেও সরাসরি চুরিতে অংশগ্রহণ করেছিল বলে আজ বৃহস্পতিবার(২৭ আগষ্ট/২০২০) দুপুরে নীলফামারীর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। জবাববন্দী শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডোমার থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান। 


উল্লেখ যে, চলতি বছরের ১৮ মার্চ দুপুরে সাজ্জাদ বেড়াতে আসে মির্জাগঞ্জ এলাকার খালাতো ভাই মতিয়ার রহমান দুলুর বাড়িতে। সন্ধ্যার দিকে সাজ্জাদ রান্না ঘরে গিয়ে খাবারের সাথে ঘুমের ঔষুধ মিশিয়ে দেয়। জরুরী কাজ আছে বলে রাতের খাবার না খেয়েই দুলুর বাড়ি হতে বেরিয়ে যায়। এরপর রাত ১১টায় সাজ্জাদ আবার  দুলুর বাড়িতে ফিরে আসে। দুলুর বাড়ির সবাই ঘুমে আচ্ছন্ন হয়ে পড়লে সাজ্জাদ তার সহযোগী চোরদের দুলুর বাড়িতে প্রবেশ করায়। সাজ্জাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পঞ্চগড় জেলার বোদা উপজেলার নুরুজ্জামান(৪০), আবু তাহের(৩৬), আটোয়ারী উপজেলার বিপুল ইসলাম(৩৬), দেবীগঞ্জ উপজেলার সেলিম (৩৯), হাবিবুর রহমান (৪২), ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শাহিনুর (৩২) সহ ছয় জন দুলুর বাড়িতে প্রবেশ করে ঘুমন্ত সদস্যদের তারা চেতনানাশক স্প্রে করে। 
পরে ঘরের স্টিলের আলমিরা ভেঙে ধান বিক্রির নয় লাখ ২৫ হাজার টাকা চুরি করে পালিয়ে যায়। এরপর দেবীগঞ্জ উপজেলার ধুলাঝাড়ি এলাকায় তারা টাকা ভাগাভাগি করে নেয়। 

নীলফামারী বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর