ব্রেকিং:
স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি নির্দেশনা মেনে রংপুর জেলায় প্রায় ছয় হাজার মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করবেন মুসল্লিরা। ঈদের দিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত মসজিদে মসজিদে এসব ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মহিউদ্দিন চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ঈদের সকালে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় ১০ মিনিটের ঝড়ের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে অর্ধশত ঘরবাড়ি। আহত হয়েছেন অন্তত পাঁচজন। পবিত্র ঈদুল ফিতর আজ
  • মঙ্গলবার   ২৬ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৭

  • || ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
আজ মুসলিমদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। লালমনিরহাটে ঈদের সকালে ১০ মিনিটের ঝড়ে লন্ডভন্ড ঘরবাড়ি রংপুরে ছয় হাজার মসজিদে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত ঘরে বসে পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ উপভোগ করুন: প্রধানমন্ত্রী জাতীয় কবি কাজী নজরুলের জন্মজয়ন্তী আজ
৮৯

দিনাজপুর সরকারি কলেজের সেগুন বাগানের গাছ চুরির মহোৎসব

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০১৯  

দিনাজপুর সরকারি কলেজের সীমানার ভেতরে প্রায় এক একর জুড়ে রয়েছে বিশাল সেগুন বাগান। সেই বাগানে রয়েছে বড় বড় সেগুন গাছ। সেই সব গাছে নজর পড়েছে একটি চক্রের। রাতের আঁধারে চক্রটি গাছ কেটে চুরির মহোৎসব করছে। এমন অভিযোগে দিনাজপুর কোতোয়ালি থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

বেশ কয়েকদিন ধরে বাগান থেকে প্রতি রাতে গাছ উধাও হচ্ছে। বাগানে শুধুই পড়ে থাকছে গাছের মূল। অনেক সময় গাছের গুড়িও দেখা যায়। এছাড়া বাগানটি কলেজের উল্টো দিকে থাকায় কর্মচারীরা নিয়মিত তদারকি করতে পারেন না। বর্ষা মৌসুম ও ছোট ছোট গাছের কারণে বাগানে প্রবেশ করা সম্ভব হয় না। ফলে বিশাল বাগানে গাছ চুরি সহজে চোখে পড়ে না। এতে সরকারি সম্পদ অহরহ হাতছাড়া হচ্ছে। আর এসব চুরির পেছনে অসাধু শিক্ষক, কমকর্তা ও কর্মচারীর যোগসাজশ রয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এরইমধ্যে কলেজ কর্তৃপক্ষ খোয়া যাওয়া, অর্ধেক কাটা সেগুন গাছ ও অর্ধেক কাটা সেগুন গাছের সঙ্গে রশি বাধা দেখতে পেয়েছে।

বাগান ঘুরে দেখা গেছে, বেশ কয়েকটি সেগুন গাছ কেটে নেয়া হয়েছে। কয়েকটি সেগুন গাছের গুড়ি ফেলে রাখা, কয়েকটি সেগুন গাছ অর্ধেক কাটা রয়েছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কিছু আলামত সংগ্রহ করেছে।

বাগানের পরিচর্যাকারী হামিদুল রহমান জানান, ৩০ সেপ্টেম্বর সেগুন বাগান থেকে একটা মাঝারি আকারের সেগুন গাছ অর্ধেক কেটে পালিয়ে যায় একটি চক্র। সেই অর্ধেক কাটা সেগুন গাছের সঙ্গে রশি লাগানো ছিল। এতে বোঝা যায়, বাগানের উপর একটি চক্রের নজর পড়েছে। এর আগে বাগান থেকে কয়েকটি গাছ কেটে নেয় চক্রটি। টানা কয়েকদিন বৃষ্টি থাকার কারণে বাগান থেকে সেগুন গাছ চুরির মহোৎসব হয়। 

কলেজ ছাত্রী জুলফি আক্তার জুঁই জানান, কলেজের চারদিকে উঁচু দেয়াল থাকার পরও রাষ্ট্রীয় সম্পদ সেগুন গাছ কেটে নিচ্ছে চক্রটি। সত্যি এটি একটি রহস্যজনক ব্যাপার।

দিনাজপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সৈয়দ মোহাম্মদ হোসেন জানান, সেগুন গাছ চুরির খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাগান পরিদর্শন করা হয়। তাৎক্ষণিকভাবে কোতোয়ালি থানার ওসিকে অবগত করা হয়েছে। তার পরামর্শে থানায় এজাহার দায়ের করার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শনও করেছে। গাছ কাটা চক্রটিকে আটক করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

আদালত বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর