ব্রেকিং:
লক্ষ্মীপুর ও বগুড়াতে নতুন দুইটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে নির্বাচিত হলে নব্বই দিনের মধ্যেই সব নাগরিক সুবিধা দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার প্রতিশ্রুতি তাপসের আইএসও সনদ পেল ১১ প্রতিষ্ঠান

মঙ্গলবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১৪ ১৪২৬   ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
সময়ানুযায়ী উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য প্রকল্প পরিচালকদের কড়া নির্দেশ দিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী ইরানি জনগণের কাছে ক্ষমা চেয়ে খোলা চিঠি পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি শান্তিবাদী সংগঠন আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা অনুষ্ঠিত হবে মঙ্গলবার
১৪

দেশের সবচেয়ে বড় স্পোর্টস জুতোর কারখানা তৈরি হচ্ছে রংপুরে

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৭ ডিসেম্বর ২০১৯  

রংপুরের তারাগঞ্জে প্রায় দেড়শ কোটি টাকা বিনিয়োগে গড়ে উঠছে দেশের সবচেয়ে বড় সিনথেটিক জুতার কারখানা। প্রবাসী বিনিয়োগকারী হাসানুজ্জামান জানান, দীর্ঘদিনের এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে কেবল বাকি শুল্ক সংক্রান্ত কিছু জটিলতা। যার সমাধান হলে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকেই শুরু হবে বাণিজ্যিক উৎপাদন। এতে কাজের সুযোগ মিলবে সোয়া দুই হাজার মানুষের।

হেমন্তের শেষভাগে উত্তরের প্রকৃতি সবুজ রং হারিয়েছে খানিকটা। শীতের আগমনী বার্তাও ছড়িয়েছে এদিক-ওদিক। শিশির মাড়িয়ে শিশুদের দুরন্তপনা কিংবা ক্ষেত-মাঠের পরিচর্যার ব্যস্ততায় অন্য দিনগুলির মতোই জেগে উঠেছে রংপুরের তারাগঞ্জের ঘনিরামপুর গ্রামটি। তারই মাঝে, অর্থনীতি আর কর্মসংস্থানকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে ব্লিং লেদার নামের শিল্প প্রতিষ্ঠান।

সাড়ে আট একরের বেশি জায়গায় প্রতিষ্ঠানটি কাজ শুরু করে বছর দুয়েক আগে। এই সময়ে শেষ হয়েছে মূল ভবনসহ আনুষঙ্গিক নির্মাণ। তাইওয়ান থেকে আনা হয়েছে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি। যা দিয়ে তৈরি করা সম্ভব বিশ্বমানের জুতাসামগ্রী। পরীক্ষামূলক উৎপাদনে কাজও শুরু করেছেন শ পাঁচেক শ্রমিক। যাদের প্রশিক্ষণও চলছে সমানতালে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, উৎপাদন ক্ষমতার হিসেবে, সিনথেটিক এবং স্পোর্টস শ্যুর সবচেয়ে বড় কারখানা এটি। যেখানে দৈনিক তৈরি হবে ২২ হাজার জোড়া জুতা। সিনথেটিক ছাড়াও, প্রস্তুত করা যাবে চামড়ার জুতা এবং অন্যান্য পণ্য। যা রপ্তানি হবে ইউরোপ, আমেরিকাসহ বড় দেশগুলোতে। এরই মধ্যে বড় ক্রেতাদের সাথে যোগাযোগ শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আশা করছে, আগামী ফেব্রুয়ারি নাগাদ বাণিজ্যিক উৎপাদনের।

প্রায় দেড়শ কোটি টাকা খরচের এই প্রতিষ্ঠান পুরো চালু হলে কাজের সুযোগ হবে সোয়া দুই হাজার মানুষের।

এই বিভাগের আরো খবর