ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ২ হাজার ১৯৭ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৪৮৯ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৭২ হাজার ১৩৪ জন।
  • বুধবার   ০৮ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৪ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪১

সর্বশেষ:
সাড়ে ১২ কোটির বেশি মানুষ পাবে ১৯ প্রণোদনা প্যাকেজের সুবিধা উওরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও বাড়ছে ভাঙনের ভয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ছাড়ার আনুষ্ঠানিকতা শুরু করল যুক্তরাষ্ট্র করোনা জয় করলেন অভিনেতা প্রবির মিত্র বিএনপি শুধু গর্তের মধ্যে ঢুকে লম্বা লম্বা কথা বলে- খাদ্যমন্ত্রী
৯৫

নিজের ধর্ষক ছেলেকেও পুড়িয়ে হত্যার দাবি জানালেন মা!

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০১৯  

ভারতের হায়দরাবাদে পশু চিকিৎসক এক তরুণীকে গণধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় চার অভিযুক্তকে গেফতার করেছে পুলিশ। ওই অভিযুক্তদের একজনের মা নিজের ছেলের চরম শাস্তির কথা সরাসরি বলেছেন।

এই গণধর্ষণ কাণ্ডে গোটা ভারত ক্ষোভে ফুঁসছে। দোষীদের চরম শাস্তির দাবিতে রাস্তায় নেমেছেন বহু মানুষ। দেশটির অন্যান্য রাজ্যেও প্রতিবাদ ও নিন্দার ঝড় উঠেছে।

এদিকে অভিযুক্তের মায়ের বক্তব্যের একটি ভিডিও সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। সেই ভিডিওটিতে তিনি বলেছেন, মেয়েটিকে যেভাবে পুড়িয়ে মারা হয়েছে, আমার ছেলেকেও যেন সেভাবেই পুড়িয়ে মারা হয়।‌

পাশাপাশি হায়দরাবাদ কাণ্ডের নির্যাতিতার মায়ের প্রতিও সমবেদনা জানিয়েছেন অভিযুক্তের মা। এর আগে নির্যাতিতার মা প্রকাশ্যে বলেছেন, ‌অভিযুক্তদের শরীরে প্রকাশ্যে আগুন ধরিয়ে দেয়া হোক। এবার ধর্ষকের মাও সেই একই দাবি তুললেন।

গত বুধবার রাতে কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে তেলেঙ্গানার ওই তরুণী চিকিৎসককে চার ট্রাক চালক ও ক্লিনার কৌশলে নিজেদের ফাঁদে ফেলে গণধর্ষণ করে। পরের দিন সকালে ওই তরুণীর আগুনে পুড়ে যাওয়া মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তাকে কম্বলে মুড়িয়ে পেট্রোল ও ডিজেল ঢেলে শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছিল।

এর পরপরই ধর্ষণ ঘটনার সঙ্গে অভিযুক্ত সন্দেহে চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে তাদের ১৪ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। তবে নির্যাতিতার পরিবারের আক্ষেপ, পুলিশ যদি দ্রুত তৎপর হতো তাহলে হয়তো বাঁচানো যেত তরুণীকে।

নির্যাতিতার বোনের অভিযোগ, এক থানা থেকে অন্য থানায় ঘোরাঘুরি করতেই দুই থেকে তিন ঘণ্টা চলে যায়। যখন তল্লাশি শুরু হয়, ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে যায়।

আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর