ব্রেকিং:
রংপুর স্টেশন থেকে কোনো ট্রেন চলবে না। রোববার বিকেলে এ তথ্য নিশ্চিত করেন রংপুর রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার আলমগীর হোসেন। রংপুরের ডেডিকেটেড করোনা আইসোলেশন হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে আরও তিনজন বাড়ি ফিরলেন। রোববার (৩১ মে) দুপুরে করোনামুক্ত হওয়ায় ওই তিনজনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়। রংপুর-ঢাকা মহাসড়কে ১ জুন (সোমবার) থেকে দূরপাল্লার বাস চলাচল শুরু হবে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরো দুই হাজার ৫৪৫ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৪৭ হাজার ১৫৩ জনে দাঁড়িয়েছে। একই সময়ে মারা গেছেন আরো ৪০ জন। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৬৫০ জন। একদিনের আক্রান্ত ও মৃত্যুর পরিসংখ্যানে এটিই সর্বোচ্চ। ট্রেনের টিকিট শুধু অনলাইনেই বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। বসলো পদ্মাসেতুর ৩০তম স্প্যান: দৃশ্যমান সাড়ে ৪ কিলোমিটার গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ছয়জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে দুইজন স্বাস্থ্যকর্মী, তিনজন গার্মেন্টসকর্মী ও একজন মাওলানা।
  • রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনা রোধে জনপ্রতিনিধিদের আরো সম্পৃক্তের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব অফিস খুলছে আজ করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানাতে চলবে মোবাইল কোর্ট পঙ্গপালের কারণে বিপর্যয়ের মুখে ভারত-পাকিস্তান দেশেই করোনাভাইরাসের পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্সিং সম্পন্ন আদিতমারীতে সব করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন

পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রধানমন্ত্রীর

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২২ মে ২০২০  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশের পৌরসভার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধের লক্ষে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দের অনুমোদন দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার সকালে তার ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিল থেকে এই বরাদ্দ প্রদান করেন।

আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে নিয়োগপ্রাপ্ত ৩২৮ পৌরসভার প্রায় ১২ হাজার স্থায়ী কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং তাদের ২০ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে এই সুবিধার আওতায় আনা হবে।

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষিতে গত ২৬ মার্চ থেকে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থায় সাধারণ ছুটি চলছে। সীমিত সম্পদ সত্ত্বেও, এই পৌরসভাগুলো কোভিড-১৯ মহামারীর বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়ে জনগণকে বিভিন্ন পরিসেবা প্রদান করে চলেছে। এ ছাড়া তারা করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধের পাশাপাশি ডেঙ্গুর ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণেও কাজ করছে।

জানা গেছে যে, কর্তৃপক্ষের রাজস্ব আদায়ের বিষয়টি সন্তোষজনক পর্যায়ে না থাকায় বেশিরভাগ পৌরসভার কর্মচারীদের বেতন-ভাতা স্থগিত ছিল। অধিকন্তু মহামারীজনিত কারণে হোল্ডিং ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স, হাটবাজার ইজারা ও দোকান ভাড়া প্রায় দুই মাস ধরে বন্ধ রয়েছে।

জরুরি সেবা প্রদানের কারণে তাদের ব্যয় উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে যাওয়ার কারণে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ এখন তাদের কর্মীদের বেতন-ভাতা প্রদানে সমস্যায় পড়েছেন। বেতন-ভাতা না পাওয়ায় কর্মীরা গত দুই মাস ধরে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর নজরে এলে তিনি তাদের জন্য ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দেন।

জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর