শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬   ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১

১৩

`প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মতে পর্যাপ্ত চিকিৎসক নিয়োগ করতে হবে`

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০১৯  

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, ‘আমরা ৫ লাখ কোটি টাকার বাজেট দিয়েছি। বড় বড় মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তাহলে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতাল গুলোতে প্রয়োজনীয় চিকিৎসক সংকট থাকবে কেন? এটা স্বাস্থ্য খাতের চরম অব্যাবস্থাপনা। প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য নীতির বিরোধী। এটি বেশিদিন চলতে পারে না। এজন্য জনদূর্ভোগ কমাতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক পর্যাপ্ত চিকিৎসক নিয়োগ করার ব্যবস্থা করতে হবে।’ 

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) দুপুরে লালমনিরহাট সদর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসাপাতালের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত মতবিনিয়ম সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে লালমনিরহাট-৩(সদর) আসনের সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ কাদের এসব কথা বলেন। 

লালমনিরহাট সদর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ গোলাম মোহাম্মদের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ রফিকুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডাঃ কাশেম আলী, সিনিয়র কনসালট্যান্ট (মেডিসিন) ডাঃ আব্দুল বাসেত, সিনিয়র কনসালট্যান্ট (সার্জারি) ডাঃ আব্দুল হাদী, জুনিয়র কনসালট্যান্ট (শিশু) ডাঃ তপন কুমার রায়, সেবা তত্বাবধায়ক অমিত কুমার বর্মণ, জাতীয় পার্টির নেতা সেকেন্দার আলী, এসকে খাজা, সময় টেলিভিশনের লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি মোফাখখারুল ইসলাম মজনু ও বণিক বার্তার লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি মোয়াজ্জেম হোসেন প্রমূখ।

গোলাম মোহাম্মদ কাদের আরো বলেন, ‘লালমনিরহাট ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটিতে চিকিৎসকসহ প্রয়োজনীয় জনবল চরম সংকট থাকার পরও গত ১০ মাসে বহিঃবিভাগে ১ লাখ ৭১ হাজার ২৫৬ জন, জরুরী বিভাগে ২৩ হাজার ৬৮৭জন, অন্তর্বিভাগে ১৬ হাজার ৩১৮জন, নরমাল ডেলিভারী ৫৫৫জন, সিজারিয়ান ৮৩জন, এক্সরে ৪ হাজার ৩৭০ জন, প্যাথলজি পরীক্ষা ৯ হাজার ১৭৩ জন, ৫৬৫জনকে মেজর ও ৬ হাজার ৪৪২জন রোগীকে মাইনর অপারেশন করা হয়েছে। চিকিৎসক ও প্রয়োজনীয় জনবল থাকলে আরো বেশি সংখ্যক প্রান্তিক দরিদ্র মানুষকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা সম্ভব ছিল। কিন্তু স্বাস্থ্য খাতের অব্যবস্থাপনার জন্য তা করা সম্ভব হয়নি। স্বাস্থ্য খাতের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাবমূর্তির বিষয়টি জড়িত। তাই এই দিকে সংশ্লিষ্টদের নজর দেওয়া উচিত।’

নতুন সড়ক আইন প্রসঙ্গে জিএম কাদের বলেন, ‘সড়ককে নিরাপত্তা বিধান করা সরকারের দায়িত্ব। আমাদের সকলের দায়িত্ব। সড়ক নিরাপদ করতে সরকারের নতুন আইনকে সকলের সমর্থন করা উচিত। বর্তমান সড়ক আইন সম্পর্কে সকলকে বোঝা উচিত।’ 

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর