সোমবার   ১৮ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬   ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি করতেই চিঠি দিয়েছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী র‌্যাবের ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমকে হাইকোর্টে তলব পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে বাংলাদেশিদের জন্য আমিরাতের শ্রমবাজার খুলে দেয়ার ইঙ্গিত যত চাপ থাকুক সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গ্রামীণফোনের পাওনার বিষয়ে আদেশ ২৪ নভেম্বর আরব আমিরাতের আরো বড় বিনিয়োগের প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর আবরার হত্যা মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) আমলে নিয়ে পলাতক চার আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত
৭৫৭

ফাহাদ হত্যা মামলার আসামি মিঠাপুকুরের জিয়নের শাস্তি চান রংপুরবাসী

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০১৯  

দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচিত বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার আসামি ছাত্রলীগের বুয়েট শাখার ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়নের বাড়ি রংপুরে। সে বুয়েটের নেভাল আর্কিটেকচার অ্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী।

বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে প্রকাশিত সিসিটিভি ফুটেজে আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের সঙ্গে তাকে দেখা গেছে। গত সোমবার (৭ অক্টোবর) মেফতাহুল ইসলাম জিয়নকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জিয়ন রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের ধলারপাড় গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে। তার বাবা পেশায় একজন সাধারণ ব্যবসায়ী।

তার বড় ভাই রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক। ছোট বোন রংপুর ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

সিসি ক্যামেরার ফুটেজে জিয়ন

জিয়ন ২০১৪ শঠিবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করার পর ঢাকার একটি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর সে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) নেভাল আর্কিটেকচার অ্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তি হন।

এদিকে, স্থানীয়রা জানান, জিয়নের পরিবার খুবই সাদামাটা জীবন-যাপন করে। তার বাবা কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত নয়।

এলাকাতে কোনো অপকর্মের সঙ্গে জিয়ন জড়িত না থাকলেও বুয়েটে ভর্তির পর থেকে সে বেপরোয়া হয়ে ওঠে। ছাত্র রাজনীতির কারণে জিয়ন এমন নারকীয় হত্যাযজ্ঞে অংশ নেয় বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

এদিকে, আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে মেফতাহুল ইসলাম জিয়নের সম্পৃক্ততায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে এলাকাজুড়ে। সচেতন মহলসহ স্থানীয়রা ওই হত্যাকাণ্ডে জিয়ন জড়িত থাকায় তাকে ধিক্কার জানিয়েছে। একই সাথে পুরো ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে জিয়নসহ জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

গত দুইদিন ধরে রংপুরে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাসহ সচেতন মহল আবরার হত্যার প্রতিবাদ জানিয়ে রংপুরের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে।

বুধবার দুপুরে পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রংপুর জেলা ও মহানগর ছাত্রদল।

উল্লেখ্য, সোমবার (৭ অক্টোবর) রাতে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ হত্যার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে মেফতাহুল ইসলাম জিয়নসহ বুয়েট ছাত্রলীগের ১১ জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর