শনিবার   ১৬ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬   ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

১৩

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নবনির্বাচিতরা আজ শপথ নেবেন

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০১৯  

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক (২০১৯-২১) মেয়াদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে ২৫ অক্টোবর (শুক্রবার)। এবারের নির্বাচনে সভাপতি পদে জয়ী হয়েছেন মিশা সওদাগর এবং সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খান।

নির্বাচনে জয়ী হয়ে প্রতিনিয়ত ফুলের শুভেচ্ছা পাচ্ছেন মিশা-জায়েদ প্যানেল। আজ নতুন কমিটির শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠান।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএফডিসি) জহির রায়হান ভিআইপি প্রজেকশন হলে সকাল ১১টায় দুই বছরের জন্য শপথ গ্রহণ করবে নবনির্বাচিত এই কমিটি।

শপথবাক্য পাঠ করাবেন নির্বাচন কমিশনের প্রধান ইলিয়াস কাঞ্চন। শপথ অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্রের সিনিয়র শিল্পী, কলাকুশলীসহ অনেকে উপস্থিত থাকবেন।

শপথ নিয়ে সবার সঙ্গে মিলে মিশে কাজ করতে চান সমিতির নেতারা।

শিল্পীদের নিয়ে চলচ্চিত্রের উন্নয়নে কাজ করবো-মিশা সওদাগর

দ্বিতীয়বারের মতো সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছেন খল অভিনেতা মিশা সওদাগর। জয়ের ব্যাপারে তিনি আশাবাদী ছিলেন। নির্বাচনের আগে একাধিক সাক্ষাৎকারে সে কথা জানিয়েছিলেন এ অভিনেতা। ফলাফল প্রকাশের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় পরাজিত প্রার্থী চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে সাধুবাদ জানিয়ে মিশা সওদাগর বলেছিলেন, একজন মহিলা প্রার্থী হয়ে তিনি এত বড় একটা লড়াইয়ে অংশ নিয়েছেন তার জন্য আমি তাকে সাধুবাদ জানাই। আমি বলবো- এটি পরাজয় না, শুধু মালাবদলের পালা। এখন আমার মালাটি আমিই পড়বো। মৌসুমীকে বলবো, হার-জিত চিরদিন থাকবে। তার মধ্যেই এগিয়ে যেতে হবে।

চলচ্চিত্রের উন্নয়নে সবাইকে নিয়ে এগিয়ে যেতে চান মিশা সওদাগর। কর্মপরিকল্পনা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, চলচ্চিত্রের উন্নয়নে সব শিল্পীকে নিয়ে কাজ করে যাব। বিদেশি চলচ্চিত্র ক্রমেই আমাদের চলচ্চিত্রকে গ্রাস করছে, এর বিরুদ্ধে আমরা আগেও সোচ্চার ছিলাম, এবারো যা করা দরকার করবো।

শিল্পীদের জন্য ফান্ড এবং আবাসন দরকার-জায়েদ খান

এবার নির্বাচনে মিশা-জায়েদ প্যানেল থেকে সাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী হয়েছেন জায়েদ খান। তিনিও দ্বিতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনের আগে আমার সংবাদের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে পূর্ণ প্যানেল জয়ের ব্যাপারে আশা ব্যক্ত করেছিলেন জায়েদ খান। ফলাফল ঘোষণার পর তাই হয়েছে। জয় লাভ করেছেন মিশা-জায়েদ পুরো প্যানেল। জয়লাভের পর বিভিন্ন মহলের ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন জায়েদ খান। এবার কর্মপরিকল্পনা কী হবে? এমন প্রশ্নের জবাবে নবনির্বাচিত এ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগামী দুই বছরের পরিকল্পনা এখনো সে রকমভাবে ঠিক করিনি। নিয়মিত কার্যক্রমে যেগুলো ছিল সেগুলো অব্যাহত থাকবে। আমার মনে হয়, শিল্পীদের জন্য বড় একটি ফান্ড এবং আবাসন ব্যবস্থা দরকার। এটি ছাড়া শিল্পীদের তেমন কোনো সমস্যা নাই। এগুলো নিয়ে কাজ করার পরিকল্পনা আছে।

ওরা ডাকলে আমি অবশ্যই যাবো-মৌসুমী

স্বতন্ত্রভাবে সভাপতি পদে নির্বাচন করেছিলেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। জয়ের ব্যাপারে তিনিও আশাবাদী ছিলেন। কিন্তু ভাগ্য সহায় ছিলো না বলে জয়ের মালা তার গলায় আসেনি। তারপরও শিল্পীদের পাশে থাকার অঙ্গীকার করেছেন প্রিয়দর্শিনী এ অভিনেত্রী। ফলাফল প্রকাশের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মৌসুমী বলেছিলেন, প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আমার কোনো অভিযোগ নেই। নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়েও কোনো অভিযোগ করতে চাচ্ছি না। শিল্পী সমিতি যে সিদ্ধান্তগুলো নেবে, সেগুলোর সঙ্গে আমিও একমত থাকবো। শিল্পীর জন্য কাজ করলে আমি ওদের পাশে থাকবো। কিন্তু ব্যক্তিগত কাজের ক্ষেত্রে হাত বাড়াবো না। শিল্পীদের উন্নয়নে কিছু করে সেখানে অবশ্যই যাবো।

ছবি বানালে শিল্পী বাঁচবে ইন্ডাস্ট্রি বাঁচবে-ডিপজল

শিল্পী সমিতির এবারের কমিটির সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেতা ডিপজল। সমিতির পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবেও শিল্পীদের উন্নয়নে কাজ করতে চান। ডিপজল মনে করেন, শিল্পী সমিতির সঙ্গে এবার তার যোগাযোগ আগের থেকে অনেক বাড়বে। আর এ বাড়ানোর জন্যই এবারের নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন তিনি। কোন কাজগুলো জোর দিয়ে করতে চান? জানতে চাইলে ডিপজল বলেন, ছবি বানানোর কাজটা আগে আমাদের দরকার। ছবি বানালে শিল্পীও বাঁচবে, ইন্ডাস্ট্রিও বাঁচবে। আগে ছবি বানাতে হবে, ছবি বানালেই সব সমিতি ঠিক। আর নাহলে সমিতি ঠিক রাখা যাবে না।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –