ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ১ হাজার ৯৯৭ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ২৮৮ জন। মহামারি করোনাভইরাসের চিকিৎসায় শর্তসাপেক্ষে রেমডেসিভির ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। শুক্রবার এই অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) হেলথ কমিশনার স্টেলা কাইরিয়াকাইডস।
  • রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২০ ১৪২৭

  • || ১৪ জ্বিলকদ ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনায় আমাদের নেতাকর্মীরা মানুষের পাশে আছে- শেখ হাসিনা কুড়িগ্রামে ধরলার পানি বাড়ছে: বাঁধে ভাঙন তিন মাস পর ফিরলেন মোশাররফ করিম মৃত্যুর পর মানুষের ৯ আকাঙ্খা ও আফসোস যে কারণে ভারতকে সতর্ক করলো চীন
৭৮

বাল্যবিয়ের চেষ্টায় কাজি ও বর কারাগারে

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০১৯  

ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিয়ের চেষ্টার অপরাধে কাজি ও বরকে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ঠাকুরগাঁওয়ের ইউএনও আবদুল্লাহ আল মামুন এ দণ্ড প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন সালন্দর ইউপির মাদরাসাপাড়ার কাজি আবদুল আজিজ ও একই ইউপির সরকারপাড়ার আবুল হোসেনের ছেলে বর আল আমিন।

জানা গেছে, বুধবার রাতে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর বিয়ের প্রস্তুতি চলছিলো। মোবাইলে খবর পেয়ে ইউএনও আবদুল্লাহ আল মামুন কয়েকজন পুলিশ নিয়ে মেয়েটির বাড়িতে যান ও বিয়ে বন্ধ করে দেন। ইউএনওর উপস্থিতি টের পেয়ে ওই সময় কনে ও তার মা-বাবা পালিয়ে যায়। তবে কাজি আবদুল আজিজ ও বর আল আমিনকে আটক করে পুলিশ।

ইউএনও আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, আল আমিনের সঙ্গে মেয়েটির বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল। বরপক্ষ সন্ধ্যায় কনের বাড়িতে উপস্থিত হয়। এলাকাবাসীর কাছে বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় কনের বাড়িতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

পরে দুই পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে ঘটনার সত্যতা মেলে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে কাজি ও বর তাদের অপরাধ স্বীকার করেন। এ সময় বাল্যবিয়ে নিরোধ আইনে বিয়ে নিবন্ধন বাতিলসহ কাজিকে তিন ও বরকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুব আলম বলেন, এই বাল্যবিয়ে বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি কাজি ও বরের সাজা হওয়ায় অন্য অভিভাবকেরা সচেতন হবেন।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ইন্সপেক্টর তানভিরুল ইসলাম বলেন, সাজাপ্রাপ্ত কাজি ও বরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আদালত বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর