ব্রেকিং:
রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) পিসিআর ল্যাবে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩৯ দশমিক ৩৬ শতাংশ। শুক্রবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ একেএম নুরুন্নবী লাইজু।
  • শনিবার   ১৫ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ৩০ ১৪২৭

  • || ২৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
শোক দিবস উপলক্ষে চারটি বিশেষ ডিজাইনের ই-পোস্টার প্রকাশিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাতে আ`লীগের বিশেষ ওয়েবিনার ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার হলেন বিক্রম দোরাইস্বামী দায়িত্ব পালনে কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অপেশাদার আচরণের অভিযোগ পেলে ছাড় দেয়া হবে না: এসপি বিপ্লব এখনো কোনো পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়নি: শিক্ষা মন্ত্রণালয়
১১৯

বেরোবিতে সেই কর্মচারীর বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি

নীলফামারি বার্তা

প্রকাশিত: ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি নূর আলমের বিরুদ্ধে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে উল্লেখ করা হয়, কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি নূর আলম বিশ্ববিদ্যালয়ে নিরাপত্তা প্রহরী হিসেবে যোগদান করলেও তিনি তার পদবি গোপন রেখে ল্যাব এটেন্ডেট হিসাবে বিশ্ববিদ্যালয় কোষাগার থেকে বড় অঙ্কের টাকা আত্মসাৎ করেন। প্রতিবেদনগুলো প্রকাশের পর ক্যাম্পাসে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মুখপাত্র তাবিউর রহমান প্রধান জানান, পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসে। দাপ্তরিক নথিপত্র পর্যালোচনা করে এর প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। বিষয়টি অধিকতর তদন্তের জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল মাহবুবকে আহ্বায়ক এবং উপ-রেজিস্ট্রার আব্দুল হাকিমকে সদস্য সচিব করে একটি ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক সানজিদ ইসলাম খান। কমিটিকে নূর আলম মিয়ার পারিতোষিক উত্তোলন সংক্রান্ত অনিয়ম ও অসঙ্গতি তদন্ত করে যথা শিগগির বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার আবু হেনা মোহাম্মদ মোস্তফা কামালের নিকট তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এ দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি নূর আলম মিয়াকে গণিত বিভাগের অধ্যাপক প্রবীণ শিক্ষক আর এম হাফিজুর রহমান সেলিমকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অশালীন ও আপত্তিকর মন্তব্য করার অপরাধে ইতোমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে।

শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর