ব্রেকিং:
নবম শ্রেণি থেকেই বিষয় ভিত্তিক বিভাজন না করার পক্ষে প্রধানমন্ত্রী পেঁয়াজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত সরকার আগামী বছর থেকেই বাংলাদেশ থেকে ট্রেনে চড়ে যাওয়া যাবে ভারতের পর্যটনখ্যাত রাজ্য দার্জিলিংয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে চীনা প্রেসিডেন্টের চিঠি

বৃহস্পতিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১৫ ১৪২৬   ০৩ রজব ১৪৪১

সর্বশেষ:
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে ওমরাহ যাত্রী ও মসজিদে নববী ভ্রমণকারীদের জন্য সৌদি আরবে প্রবেশ সাময়িকভাবে স্থগিত পদকে এগিয়ে বেগম রোকেয়ার মেয়েরা তাবলীগ জামাতের দুই গ্রুপে সংঘর্ষের আশঙ্কা, ইজতেমা বন্ধ নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপঃ টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ পার্বতীপুরে মামলার বাদীকে প্রাণনাশের হুমকি! শপথ গ্রহণ করলেন ঢাকার নবনির্বাচিত মেয়র তাপস-আতিকুল
৭৭

ব্যান্ড পার্টি নিয়ে মনোনয়ন জমা দিলেন মিশা-জায়েদ প্যানেল

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩ অক্টোবর ২০১৯  

আগামী ২৫ অক্টোবর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন। বৃহস্পতিবার সম্ভাব্য প্রার্থীরা মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এদিন বিকেলে ব্যান্ড পার্টি নিয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দেন মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান প্যানেল।

মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় মিশা-জায়েদের সঙ্গে ছিলেন ডিপজল, আলেক জেন্ডার বো, ইমন, জয় চৌধুরী, জ্যাকি আলমগীর, অঞ্জনা, রোজিনাসহ একঝাঁক শিল্পীরা। এছাড়াও প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরুও এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলেন।

মনোনয়ন পত্র জমার দেয়ার আগে ব্যান্ড পার্টি নিয়ে এফডিসিতে শো ডাউন করে মিশা-জায়েদ প্যানেল। এ সময় মিশা সওদাগর বলেন, শিল্পীদের নির্বাচন হবে আনন্দঘন। আমাদের নির্বাচনও শিল্পীসত্তার বহিঃপ্রকাশ থাকবে। তার ধারাবাহিকতায় ব্যান্ড পার্টি নিয়ে মনোনয়ন জমা দিচ্ছি আমরা। আশা করি সকল শিল্পীরা আমাদের প্যানেলের সঙ্গে থাকবে।  

মনোনয়ন পত্র জমা দিচ্ছেন মিশা-জায়েদ প্যানেল

মনোনয়ন পত্র জমা দিচ্ছেন মিশা-জায়েদ প্যানেল

মিশা সওদাগরের কথার সঙ্গে একমত পোষন করে জায়েদ খান বলেন, আমরা নেতৃত্বে আসার পরই শিল্পী সমিতিতে আনন্দের সমিতি বানানোর চেষ্টা করেছি। তাদের উন্নয়নে যতটা সম্ভব কাজ করেছি। সবাইকে নিয়েই মনোনয়ন জমা দিয়েছি। আমাদের মাথার উপর সিনিয়র সব শিল্পীদরে আর্শিবাদ আছে। আমাদের প্যানেলে ডিপজল, রুবেল, অঞ্জনা ও রোজিনার মতো তারকা শিল্পীরা আছেন। আশা করি এবারো আমরা জয়ী হবো।

এদিকে, নির্বাচনের আগেই মিশা-জায়েদ প্যানেলের জয় জয়কার দেখা যাচ্ছে। কারণ নির্বাচনের ২১ পদের বিপরীতে ৬০ টি মনোনয়ন বিক্রি হলেও জমা পড়েছে মাত্র ২৬টি। এরমধ্যে ২১ টি মিশা-জায়েদ প্যানেলের। স্বতন্ত্র সভাপতি প্রার্থী পদে মৌসুমী, সহ-সভাপতি পদে নানা শাহ, সাধারণ সম্পাদক পদে ইলিয়াস কোবরা, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক পদে সাঙ্কু পাঞ্জা, কোষাধ্যক্ষ পদে সাইফুল ইসলাম স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে পাঁচটি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে। ফলে স্বাভাবিকভাবে প্রার্থী না থাকায় মিশা-জায়েদ প্যানেলের একাধিক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হতে যাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, শুরু থেকে মিশা-জায়েদ প্যানেলের বিপরীতে মৌসুমী-ডিএ তায়েব প্যানেল নির্বাচন করবে শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ডিএ তায়েবও মনোনয়ন জমা দেননি। এ কারণে মৌসুমী একা স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে লড়ছেন।