• শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৭

  • || ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
১৫ লাখ কৃষককে বিনামূল্যে হাইব্রিড বীজ দেবে সরকার দিনাজপুরে ঘন কুয়াশায় জেঁকে বসেছে শীত করোনার ভ্যাকসিন মানুষ সহজেই পাবে- সেতুমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ষড়যন্ত্রের জবাব দেবে জনগণ- মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী পেঁয়াজ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে রোডম্যাপ সরকারের

মরিশাসে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’-এর উদ্বোধন

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০২০  

মরিশাসে বাংলাদেশ হাইকমিশন প্রাঙ্গণে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মরণে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’-এর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু কর্নারটি উদ্বোধন করেন পোর্ট লুইস মরিশাসের লর্ড মেয়র মাহফুজ মুসা কাদের সাইব। অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সব সদস্যের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা, প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য, বাংলাদেশ ও মরিশাসের জনগণের সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন এই মিশনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

প্রধান অতিথি মাহফুজ মুসা কাদের সাইব বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কর্নারে স্থাপিত ছবিগুলোর মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য কর্মজীবনের সার্বিক চিত্র ফুটে উঠেছে, যা আজকের নতুন প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা জোগাবে বলে মনে করছি। সেই সঙ্গে আমি আশা প্রকাশ করছি, বন্ধুপ্রতিম বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের সুসম্পর্ক অটুট থাকবে।’

সমাপনী বক্তব্যে হাইকমিশনার রেজিনা আহমেদ স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সব শহীদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন। 

তিনি বলেন, ‘দূতাবাস বঙ্গবন্ধুর কর্নার স্থাপনের মাধ্যমে তাঁর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক, সামাজিক ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে নানামুখী কর্মকাণ্ডের বিভিন্ন দিক তুলে ধরার চেষ্টা করছে। বঙ্গবন্ধু আমাদের অনুপ্রেরণা, তাঁর অপরিসীম ত্যাগের বিনিময়ই আমরা আজ স্বাধীন দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পারছি। তাঁর অনুপ্রেরণাতেই আমরা দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল ক্ষুধামুক্ত, সুখী, সমৃদ্ধ ও স্বাধীন বাংলাদেশ গড়ার। প্রধানমন্ত্রীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে আমরা একটু একটু করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি।’ তিনি মরিশাস সরকার, মিউনিসিপ্যালিটি অব পোর্ট লুইস এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের এ যাত্রায় শামিল হওয়ার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠানে ডেপুটি মেয়র, পোর্ট লুইস, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, পোর্ট লুইস মিউনিসিপ্যালিটি, দূতাবাসের সদস্য এবং প্রবাসী বাংলাদেশিরা উপস্থিত ছিলেন।