শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
সশস্ত্র বাহিনীর বীর শহীদদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বিএনপি এখন গুজবের রাজনীতি করে: কাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাসে পরিবহন-মালিক শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার সশস্ত্র বাহিনী দিবস আজ
২৫

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শিক্ষক পরিষদের নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০১৯  

দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি-২০১৯ এর অভিষেক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে বুধবার সন্ধ্যায় (১৬ অক্টোবর)। অনুষ্ঠানটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়াম-২ তে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার। অভিষেক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের ডীন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের সদ্য সাবেক সভাপতি প্রফেসর ড. ভবেন্দ্র কুমার বিশ্বাস। এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের নবগঠিত কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. ফাহিমা খানম ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডাঃ মোঃ ফজলুল হক (বীর মুক্তিযোদ্ধা),নবগঠিত কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ,সাধারন সদস্যবৃন্দ ,কর্মকর্তাবৃন্দ সহ  হাবিপ্রবি ছাএলীগের নেতৃবৃন্দ। 

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন,সম্মানিত উপাচার্য মহোদয় এ বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার পর থেকেই বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে হাত দিয়েছেন।  তার সকল চিন্তা ভাবনা বিশ্ববিদ্যালয়কে ঘিরেই। আমরা সকলে একত্রিত হয়ে যদি উপাচার্য মহোদয়কে সহায়তা করি তবে হাবিপ্রবির উন্নয়ন আরও দ্রুত ঘটবে"। বর্তমান সরকার তাকে নিয়োগ দিয়েছেন, সকলের উচিৎ তাকে সহযোগিতা করা কিন্তু আওয়ামীলীগের নাম ভাঙিয়ে তার বিরোধীতা করা মানে সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার সামিল। 

এদিকে  অনুষ্ঠানের সভাপতি তাঁর বক্তব্যে বলেন, আমি দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে প্রতি পদে পদে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয়েছিলাম। কিন্তু শিক্ষকদের মাঝে এত দ্বন্দ্ব থাকলে হাবিপ্রবি মুখ থুবরে পড়বে। তাই আমি চাই আসুন হাবিপ্রবির স্বার্থের কথা চিন্তা করে একত্রিত হয়ে কাজ করি। এ সময় তিনি আরো বলেন এবারের শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ছিল হাবিপ্রবির ইতিহাসে সবচেয়ে স্বচ্ছ নিয়োগ প্রক্রিয়া। যেখানে কোনো জালিয়াতি হয় নি। এটা আমরা চ্যালেঞ্জ নিয়ে বলতে পারি, সেই সৎ সাহস আমাদের আছে। একটি মহল পরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন ভিত্তিহীন ইস্যু নিয়ে রাজনীতি করে যাচ্ছে, মানুষের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে পর্যন্ত তারা রাজনীতি করছে। শিক্ষকদের কাজ ক্লাস, পরীক্ষা ও গবেষণা নিয়ে থাকা কিন্তু আমরা কি করছি? এভাবে চলতে থাকলে শিক্ষকদের যেটুকু মান সম্মান আছে সেটুকু ও থাকবে না। 

তার বক্তব্য শেষে সদ্য যোগদানকৃত নতুন প্রভাষকগণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের নব নির্বাচিত সদস্যদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। এরপর কার্যনির্বাহী কমিতির সদস্যবৃন্দকে শপথ বাক্য পাঠ করান সদ্য সাবেক সভাপতি প্রফেসর ড. ভবেন্দ্র কুমার বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ আবু সাঈদ। উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের কার্যনির্বাহী পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্য সংখ্যা ২৩ জন এবং মোট সদস্য সংখ্যা ১০৩ জন।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর