ব্রেকিং:
সারাদেশে সিনেমা হল নির্মাণে ১ হাজার কোটি টাকার তহবিল দেবে সরকার-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
  • সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৪ ১৪২৭

  • || ০৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
শেখ হাসিনাকে নিয়ে শিল্পকর্ম প্রদর্শনীতে মার্কিন রাষ্ট্রদূত পার্বত্যাঞ্চল এখন মৈত্রীময় অঞ্চলে পরিণত হয়েছে- মন্ত্রী এ বছর আইসিটি খাতে ২০ লাখ কর্মসংস্থান হবে- প্রতিমন্ত্রী পলক মাত্র ১২ বছরে বাংলাদেশ হয়ে উঠেছে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ কারিগরি শিক্ষায় ভাতের অভাব হয় না- প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ

মুজিববর্ষ: ডিমলায় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘর উপহার পাচ্ছেন ১৯৩ পরিবার

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৯ ডিসেম্বর ২০২০  

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘর উপহার পাচ্ছেন নীলফামারীর ডিমলা উপজেলাা ১৯৩ ভূমিহীন পরিবার। আজ বুধবার(৯ ডিসেম্বর) বেলা দুইটার দিকে উপজেলার খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের বন্দর খড়িবাড়ী গ্রামে ওই প্রকল্পের আওতায় ৪১ পরিবারের ঘর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নীলফামারী-১ (ডোমার-ডিমলা) আসনের সংসদ সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার। 

এসময় ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়শ্রী রানী রায়ের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন, ডিমলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা তবিবুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সস্পাদক আনোয়ারুল হক সরকার, খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম, ডিমলা থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেজবাহুর রহমান প্রমুখ। 

খগাখড়িবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম জানান, ইউনিয়নে ওই প্রকল্পের আওতায় সরকারিভাবে ৪০টি এবং ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব অর্থায়নে একটিসহ মোট ৪১টি ভূমিহীন পরিবারকে একটি করে ঘর দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি ঘর নির্মানে পরিবহন খরচসহ মোট এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা ব্যয় হবে। প্রতিটি ঘরে দুটি করে শয়ন কক্ষ, রান্নাঘর, বারান্দা ও টয়লেট থাকবে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেজবাহুর রহমান বলেন, “আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় প্রথম পর্যায়ে উপজেলার ১৮৫টি পরিবারকে ৩ কোটি ২৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ব্যয়ে সরকারি খাস জমিতে আধাপাকা ঘর নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ রয়েছে এক লাখ ৭৫ হাজার টাকা করে। এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব অর্থায়নে একটি করে আরও আটটি ঘর নির্মাণ হবে। এ নিয়ে ঘর পাবেন ১৯৩টি পরিবার।”

সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, মহামারী করোনা ও বন্যাসহ নানা কারণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলো। প্রধানমন্ত্রীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে এসব সংকট বাংলাদেশ মোকাবেলা করেছে। তিনি গরিবের জন্য সর্বদা তার হাত বাড়িয়েছেন, যা সত্যিই প্রসংশনীয়।