ব্রেকিং:
ট্রেনের টিকিট শুধু অনলাইনেই বিক্রি হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। বসলো পদ্মাসেতুর ৩০তম স্প্যান: দৃশ্যমান সাড়ে ৪ কিলোমিটার গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ছয়জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে দুইজন স্বাস্থ্যকর্মী, তিনজন গার্মেন্টসকর্মী ও একজন মাওলানা।
  • শনিবার   ৩০ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪২৭

  • || ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
বসলো পদ্মাসেতুর ৩০তম স্প্যান: দৃশ্যমান সাড়ে ৪ কিলোমিটার করোনা-আম্ফান-কালবৈশাখী: দিনাজপুরে দিশেহারা লিচুচাষিরা গাইবান্ধায় ঈদের ছুটিতে আসা ৩ গার্মেন্টসকর্মী করোনায় আক্রান্ত ঠাকুরগাঁওয়ে এক রাস্তার সমস্যা অনেক গাইবান্ধায় রড চুরির ঘটনায় মৃত দুই ব্যক্তির নামে মামলা
৯১

শুভ জন্মদিন নগরবাউল জেমস

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০১৯  

নগরবাউল একজনই। পুরো নাম ফারুক মাহফুজ আনাম জেমস। ছোট থেকেই হয়ত বাউন্ডুলেপনা পেয়ে বসেছিল তাকে। উত্তরবঙ্গের এই ছেলে নওগাঁর পত্নীতলায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬৪ সালের এই দিনে পৃথিবীতে এসেছিলেন; আজ তার ৫৫তম জন্মদিন। তবে তিনি কৈশোর, তারুণ্য কাটিয়েছেন চট্টগ্রামে।

দিনটি বিশেষ, তবে তা নিয়ে নগরবাউলের কোনো উচ্ছ্বাস নেই। বিশেষ কোনো আয়োজনও নেই বলে জানিয়েছেন। জাঁকজমক আয়োজনে মন টানে না তার। তাই নিজে সাদামাটাভাবে এ দিনটি কাটান। জেমস বলেন, অন্যসব দিনের মতোই আজকের দিনটি কাটবে। বিশেষ কোনো আয়োজন নেই। তবে সবার কাছে দোয়া চাই।

গানের কথায় ভিন্নতা ও কাব্যধর্মী শব্দের আধিক্য তাকে সকল কণ্ঠশিল্পীদের থেকে আলাদা করে ফেলে। নব্বইয়ের দশকে একটা বিশেষ তরুণ শ্রেণীর হৃদয় দখল করলেও শূন্য দশকের পর থেকে জেমসের গ্রহণযোগ্যতা সর্বত্র তৈরি হয়। তবে জেমসের মিউজিক জীবন শুরু আশির দশকের একেবারে শুরুতে, চট্টগ্রামে। বাবার চাকরিসূত্রে চট্টগ্রামে চলে যান। কিন্তু বাবা যখন ঢাকা উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ডিরেক্টর জেনারেল হয়ে চলে আসেন। জেমস থেকে যান চট্টগ্রামে। আজিজ বোর্ডিং এর ‘বারো বাই বারো’র একটি ছোট্ট রুমে চলে সংগ্রামী জীবন। সেখানের নাইটক্লাবে বাজাতেন-গান করতেন।

চট্টগ্রাম থেকে শুরু হওয়া ব্যান্ডদল ‘ফিলিংস’-এর মাধ্যমে তিনি প্রথমে খ্যাতি অর্জন করেন। পরে সেই ব্যান্ড দলের নাম ‘নগরবাউল করেন’। বাংলাদেশ ছাড়িয়ে দেশের বাইরেও খুব জনপ্রিয় জেমস। ভারতের সবচেয়ে বড় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতেও কাজ করেছেন। ২০০৫ সালে বলিউডের ‘গ্যাংস্টার’ ছবিতে ‘ভিগি ভিগি’ নামে একটি গান করে সেখানেও বেশ আলোচিত হন। পরে বলিউডের আরও কয়েকটি ছবিতে গান করেন।

আজকের বিশ্বতারকা জেমসের দুঃখ জেমসের সাফল্য বাবা-মা কেউই দেখে যেতে পারেননি। আর তাইতো তার কণ্ঠে ‘বাবা কতদিন দেখি না তোমায়’ কিংবা ‘মা’ গানে এতটা দরদ ঝরে পড়েছে। দেশের সবধরনের শ্রোতাদের এই গান স্পর্শ করে যায় এখনো।

বিনোদন বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর