শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

৩১

সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই শুরু হচ্ছে ৬ মাসের কারিগরি প্রশিক্ষণ কোর্স

প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০১৯  

প্রতি বছর দেশে ২৮লাখ উচ্চ শিক্ষিত যুবক চাকুরী খুঁজেন। এদের মধ্যে ৬ লাখ শহরের এবং বাকি ২৩ লাখ গ্রামের যুবক। যার কারণেই সরকার দেশের সকল স্কুল-কলেজ-মাদরাসায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের সাধারণ পড়াশোনার পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষা প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছে।

শনিবার (১৯ অক্টোবর) বিকেলে নীলফামারী জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় সরকারের এই উদ্যোগের কথা জানান শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ।

তিনি জানান, সাধারণ বিভাগে পড়াশোনা শেষ করে যারা বের হচ্ছেন তাদের সংখ্যাই শতকরা নব্বই ভাগ। তাদের চাকুরীর তেমন সুযোগ তৈরি হচ্ছে না। এটা একটা বড় সংকট। তিনি বলেন, প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছয় মাসের কারিগরি প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করা হচ্ছে। অর্থাৎ ৩৬০ঘন্টার কোর্স। ১১৫টি বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে। যেখানে যা প্রয়োজন সেখানে সেটি করা হবে। এরফলে সাধারণ পড়াশোনার পাশাপাশি কারিগরি প্রশিক্ষণ নিয়ে চাকুরীর সুযোগ তৈরি হবে সহজে।

‘২০২০ সাল নাগাদ কারিগরি শিক্ষার শতকরা ২০ভাগ এনরোলমেন্ট অর্জণে করণীয়’ শীর্ষক কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোরাদ হোসেন মোল্লা, পরিচালক ফেরদৌস আলম বক্তব্য দেন।

কারিগরি বোর্ডের চেয়ারম্যান মোরাদ হোসেন মোল্লা বলেন, ২০২০ সালের মধ্যে ২০ভাগ শিক্ষার্থীকে এর আওতায় আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে ৩০ভাগ এবং ২০৪০সালের মধ্যে ৫০ভাগ শিক্ষার্থীকে তালিকা ভুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুগোপুযোগী যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেটি বাস্তবায়ন হলে বেকারের সংখ্যা কমে আসার পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রের বিস্তার ঘটবে। কর্মশালায় জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ অংশগ্রহণ করেন।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর