শুক্রবার   ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

২১

সৈয়দপুরে প্রতারণার অভিযোগে এক নারী গ্রেফতার

প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৯  

প্রতারণার অভিযোগে খোদেজা বেগম(৪৮) নামের এক নারী গ্রেফতার হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার(২৮ নভেম্বর) রাতে এলাকাবাসীর সহায়তায় সৈয়দপুর থানা পুলিশ ওই নারীকে গ্রেফতার করে। তিনি শহরের মুন্সিপাড়া ঢাকাইয়া পট্রির বিল্লাল হোসেনে স্ত্রী।

এ ঘটনায় প্রতারণার শিকার গৃহবধূ মোছা. জোবেদা বেগম ওরফে জোবে নিজে বাদী হয়ে সৈয়দপুর থানায় ওই মামলা করেন।

মামলা সুত্রে জানা যায়, ওই নারী  মুন্সিপাড়া ঢাকাইয়া পট্টিতে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী সহ বসবাস করেন। বাসার সামনে তিনি ৭১’এর সহযোগী মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সাইনবোর্ড লাগিয়ে অফিস করে এলাকায় সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করে। সদস্য হতে আগ্রহীদের কাছ থেকে তিনি আড়াই হাজার টাকা করে আদায়ের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। ওই নারীর প্রচারণায় রয়েছে যারা সদস্য হবেন তারা  সরকারীভাবে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, এককালীন ১ লাখ টাকা ও বাড়ি পাবেন।  

এরই ধারাবাহিকতায় ওই নারী সৈয়দপুর শহরের হাতিখানা এলাকায় সদস্য সংগ্রহ করতে যায় এবং কয়েক জনের কাছ থেকে চাঁদাও আদায় করে। চাঁদা আদায়ের সময় স্থানীয় লোকজনের কাছে সংগঠনের সঠিক পরিচিতি বা কার্যক্রম পরিচালনার বিষয়ে সন্দেহ হলে এলাকাবাসী ওই নারীকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে খোদেজা বেগম একেক সময় একেক ধরনের  কথা বলে। এসময় তার কাছ থেকে সদস্য সংগ্রহের ফরম, চাঁদা আদায়ের রশিদ ও নগদ ৩ হাজার ৯ শত ৩৯ টাকা জব্দ করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতারক চক্রের নারী সদস্য খোদেজা বেগম এভাবে ওই এলাকার প্রায় অর্ধ শতাধিক মানুষের কাছে থেকে বেশ কিছু টাকা হাতিয়ে নেয়। ওই এলাকার মোছা. জিন্নাতুন, মোছা. হাছিনা বেগম, লতিফা খাতুন, মহসেনা বেগম, আক্কাস আলী, মোছা. কুলছুমসহ আরো অনেকেই বলেন, আমরা খোজেদা বেগমের কথা সরল মনে বিশ্বাস করে ৭১ এর সহযোগি মুক্তিযোদ্ধা পরিষদের সদস্য হওয়ার জন্য প্রথম অবস্থায় নগদ ৫০০ থেকে ১১০০ টাকা পর্যন্ত টাকা দিয়েছি। 

সৈয়দপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবুল হাসনাত খান  মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, মামলার আসামী খোজেদাকে শুক্রবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে নীলফামারী কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর