ব্রেকিং:
রংপুর মেডিকেল কলেজে (রমেক) পিসিআর ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে আরো ৫৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। রবিবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ একেএম নুরুন্নবী লাইজু। দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মারা গেলেন ৩ হাজার ৩৯৯ জন। এছাড়া নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ৪৮৭ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫৭ হাজার ৬০০ জন।
  • রোববার   ০৯ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৭

  • || ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
শ্রীলঙ্কার বিজয়ী প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকশা-কে শেখ হাসিনার অভিনন্দন দিনাজপুরে সাংবাদিকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহায়তার চেক বিতরণ গঙ্গাচড়ার বন্যা কবলিত ৫’শ মানুষের মাঝে ত্রান বিতরণ মেজর সিনহা নিহতের ঘটনায় কেউই ছাড় পাবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আ.লীগের প্রতিটি সংগঠনের সাথে মায়ের নিবিড় সম্পর্ক ছিল: শেখ হাসিনা
৭০

হাবিপ্রবিতে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ, ভর্তি শুরু ৫ জানুয়ারি

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৯ ডিসেম্বর ২০১৯  

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। সোমবার রাত সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ ফল প্রকাশ করা হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোটায় মেধা তালিকায় নির্বাচিত প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার ১ জানুয়ারি (সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত) ও কোটায় অপেক্ষমান তালিকায় নির্বাচিত প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার ২ জানুয়ারি (সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত) হবে। 

এছাড়া মেধাতালিকায় নির্বাচিত প্রার্থীরা ৫ জানুয়ারি ‘এ’ ইউনিটে, ৬ জানুয়ারি ‘বি’ ইউনিটে, ৭ জানুয়ারি ‘সি’ ও ‘ডি’ ইউনিটে ভর্তির সুযোগ পাবে।
 
অন্যদিকে, অপেক্ষমান তালিকার অনলাইনে রিপোর্টিং করার সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে ৮ ও ৯ জানুয়ারি (সকল ইউনিট)। এছাড়া প্রথম অপেক্ষমান তালিকা থেকে শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পাবে ১৩ জানুয়ারি ‘এ’, ‘ডি’ ইউনিটে ও ১৪ জানুয়ারি ‘বি’ ও ‘ডি’ ইউনিটে। 

ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামের সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারিত করা হয়েছে ১৯ জানুয়ারি। ২০২০ শিক্ষাবর্ষের ক্লাস শুরু হবে ২০ জানুয়ারি।

অনলাইন রিপোর্টিং ব্যতীত কোনো প্রার্থী অপেক্ষমান তালিকা থেকে হাবিপ্রবিতে ভর্তির সুযোগ পাবে না। স্বাক্ষাৎকারের সময় মূলসনদ নিয়ে আসতে হবে ভর্তিচ্ছুদের। 

মুক্তিযোদ্ধা কোটার ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ও প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে আত্মীয়তার প্রমাণপত্র, আদিবাসী ও উপজাতির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ডিসির প্রদত্ত সার্টিফিকেট, খেলোয়াড় কোটার ক্ষেত্রে বিকেএসপি থেকে প্রাপ্ত পাশের সনদপত্র এবং প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে সমাজসেবা অধিদফতরের /সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রতিবন্ধী প্রত্যয়নপত্র উপস্থাপন করতে হবে। 

এরআগে, হাবিপ্রবিতে ভর্তি পরীক্ষা হয় ২ থেকে ৫ ডিসেম্বর। ভর্তির বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাচ্ছে (www.hstu.ac.bd)। 

শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর