• শনিবার   ০৮ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৪ ১৪২৮

  • || ২৪ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
আজ শেখ হাসিনার দেশে ফেরার দিন দেশে ৯০০ টন অক্সিজেন মজুদ আছে- স্বাস্থ্যমন্ত্রী খানসামায় করোনায় কর্মহীন ৩ হাজার পরিবারকে সহযোগিতা বালু উত্তোলনের ঘটনায় ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা কুড়িগ্রামে পরিবহণ শ্রমিকরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার

হাবিপ্রবির শিক্ষার্থী এখন সোমালিয়ার এমপি

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০২১  

পূর্ব আফ্রিকার দেশ সোমালিয়ার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) সাবেক শিক্ষার্থী সাকারিয়া সোলাইনমান। তিনি দেশটির হিরশাবিল অঙ্গরাজ্যের এমপি হয়েছেন। 

সাকারিয়া সোলাইমান হাবিপ্রবির কৃষি অনুষদের জেনেটিক্স অ্যান্ড প্লান্ট ব্রিডিং বিভাগ থেকে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে স্নাতকোত্তর শেষ করেছেন। এরপর এমপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। এমপি নির্বাচনে অনেক প্রতিদ্বন্দ্বী থাকলেও শিক্ষাগত যোগ্যতা, কর্মদক্ষতা এবং জনসম্পর্কের উপর ভালো ধারণা থাকার ফলে গোষ্ঠী নেতাদের শতকরা ৯৫ শতাংশ ভোটে এমপি হন সাকারিয়া।

স্কুল ও কলেজের পেরিয়ে সাকারিয়া ভর্তি হন সোমালিয়ার বেনাদির কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে। স্নাতক শেষে স্নাতকোত্তর শেষ করতে বৃত্তি নিয়ে ভর্তি হন হাবিপ্রবিতে। এরপর হাবিপ্রবির জেনেটিক্স অ্যান্ড প্লান্ট ব্রিডিং বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তের শেষ করেই দেশে ফিরেন তিনি। 

অনুভূতি জানতে চাইলে তিনি বলেন, সত্যি কথা বলতে হিরশাবিল অঙ্গরাজ্যের এমপি নির্বাচিত হওয়া আমার জন্য অবিশ্বাস্য এবং বিস্ময়কর ছিলো। সবার উদ্দেশে একটি কথায় বলতে চাই, ধন্যবাদ পাবার আশা ছাড়াই ভালো কাজ করো, তাহলেই তুমি মহান এবং সফল হবে'।

এসময় সাকারিয়া হাবিপ্রবি নিয়েও স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন, হাবিপ্রবি সব সময় মনের মাঝে রয়েছে। সব সময় প্রিয় শিক্ষক, সুপারভাইজার এবং সহপাঠী বন্ধুদের জন্য প্রার্থনা করি। তারা অনেক সহযোগিতা করেছেন। হাবিপ্রবির জিয়া হলে আমার বেশ ভালো সময় কেটেছে। ইনশাআল্লাহ আশা করছি খুব দ্রুতই সবার সঙ্গে আবার দেখা হবে। 

হাবিপ্রবির ১৭ ব্যাচের ফুড অ্যান্ড প্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী সোয়ায়েব হোসেন বলেন, আমরা নিজেরাও জানি না যে আমাদের আশেপাশে এমন কিছু মানুষ আছে, যারা সত্যিই অসাধারণ। তখনি তাদের বুঝতে পারি যখন তারা তাদের যোগ্যতার আসনে আসীন হোন। যেমন ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের ছাত্র ছিলেন। ঠিক তেমনি বড় ভাই সাকারিয়াও। তিনি খুব মজার ও হাস্যোজ্বল একজন মানুষ। এই কৌতুক প্রিয় মানুষটি খুব ভাল ফুটবল খেলতেও জানতো। এছাড়াও সাকারিয়া ভাইয়ের মাঝে অনেক নেতৃত্বসুলভ গুণও ছিলো। এজন্য আমি মনে করি সাকারিয়া শুধু সোমালিয়ানদের গর্ব না বরং হাবিপ্রবিরও গর্ব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিন উপাচার্য অধ্যাপক ড. বিধান চন্দ্র হালদার বলেন, সাকারিয়ার এমন সাফল্যে আমরা গর্বিত। সে ভবিষ্যতে আরও ভালো কিছু করবে এমনটাই প্রত্যাশা করি।

উল্লেখ্য হাবিপ্রবিতে বৃত্তি নিয়ে  সোমালিয়া, ভারত, নেপাল, ভুটান, নাইজেরিয়াসহ মোট ছয়টি দেশের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের দেয়া তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে হাবিপ্রবিতে মোট বিদেশি শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৩৮ জন। ইউজিসির সর্বশেষ (৪৬তম) বার্ষিক প্রতিবেদন বলছে বিদেশি শিক্ষার্থী অধ্যয়নের দিক থেকে হাবিপ্রবির অবস্থান দ্বিতীয়।