ব্রেকিং:
ট্রেন দুর্ঘটনায় তূর্ণা নিশীথার চালক, সহকারী চালক ও পরিচালককে বরখাস্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেসে তুর্ণা নীশিতার ধাক্কায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৬ জনে দাঁড়িয়েছে।

বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
ট্রেন দুর্ঘটনার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে কৃষিতে ক্ষতি ২৬৩ কোটি টাকা ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবার প্রতি ১ লাখ টাকা এবং আহতদের ১০ হাজার টাকা করে সাহায্যের ঘোষণা রেলপথ মন্ত্রীর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী স্বেচ্ছাসেবকলীগ ঢাকা মহানগর উত্তরের সম্মেলন আজ রাষ্ট্রপতি নেপাল যাচ্ছেন আজ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান আগামী ৮ ডিসেম্বর টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে ৩৮তম স্থানে বাংলাদেশের মোহাম্মদ নাঈম
৬৮

হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী কমছে, চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৮ শতাংশ

প্রকাশিত: ২০ আগস্ট ২০১৯  

সরকারের নানা পদক্ষেপের কারণে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী কমার পাশাপাশি চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফেরা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এ পর্যন্ত চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৮ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও লাইন ডিরেক্টর (কমিউনিকেবল ডিজিজ কন্ট্রোল) অধ্যাপক ডা. সানিয়া তাহমিনা সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত ভর্তি রোগীর সংখ্যা কমেছে। আশা করছি, এই সংখ্যা আর বাড়বে না। গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকার হাসপাতালে মোট রোগীর সংখ্যা ৭ শতাংশ এবং ঢাকার বাইরে রোগীর সংখ্যা ৫ শতাংশ কমেছে। আক্রান্তদের সংখ্যা সূচকে নিম্নগতি পর্যবেক্ষণ করেছি।

তিনি বলেন, আশা করছি, এই নিম্নগতি অব্যাহত থাকবে। স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্টদের সমন্বিত প্রচেষ্টা ও জনসচেতনতার কারণে এই সংখ্যা কমেছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে প্রাপ্ত প্রতিবেদন থেকে জানান গেছে, চলতি বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪ হাজার ৭৯৭ জন। আর চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৮ হাজার ২৪ জন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে নতুন ১ হাজার ৬১৫ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন, যার মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ৭৫৭ জন এবং ঢাকার বাহিরে ভর্তি হয়েছেন ৮৫৮ জন। পয়লা জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪০ জন।

এ ছাড়াও ঢাকার ৪০ টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৩ হাজার ৪১৯ জন। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ৩ হাজার ৩১৪ জন ভর্তি রয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১২২, মিটফোর্ড হাসপাতালে ৮১, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ২৪, শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ৭৫, বিএসএমএমইউতে ৪০, পুলিশ হাসপাতাল রাজারবাগে ১৮, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৭৩, বিজিবি হাসপাতাল পিলখানায় ৫, সম্মলিত সামরিক হাসপাতালে ১৪, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ৫৪ এবং অন্যান্য হাসপাতালে (নিটোর) ২ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন।

ঢাকা বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে (ঢাকা শহর ব্যতীত) ২১৯ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৫২ জন, খুলনা বিভাগে ১৪৫ জন, রংপুর বিভাগে ৩১ জন, রাজশাহী বিভাগে ৯৫ জন, বরিশাল বিভাগে ১৫৫ জন, সিলেট বিভাগে ১৫ জন ও ময়মনসিংহ বিভাগে ৪৬ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগী ভর্তি হন।

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –