• শনিবার   ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
তারা বুদ্ধিজীবী না, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধীজীবী- প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রার প্রশংসায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন ঘূর্ণিঝড় ‘মানদৌস’ নিয়ে আবহাওয়া অফিসের নতুন বার্তা উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে: নৌপ্রতিমন্ত্রী শামসুল আলমের প্রতি ভারতীয় হাই কমিশনারের শ্রদ্ধা

হাওরের বুক চিরে নান্দনিক সড়ক 

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১২ আগস্ট ২০২০  

ভরা বর্ষায় কিশোরগঞ্জের হাওরগুলোর চিরায়ত রূপের বাহারে নতুন সংযুক্তি, ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রামের নবনির্মিত সড়ক। হাওরবাসীর জন্য বিশেষ উপহার হিসেবে এই রাস্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

হাওরের বুক চিরে গড়ে তোলা, দৃষ্টিনন্দন এই রাস্তার কল্যাণে পর্যটন আকর্ষণের নতুন সম্ভাবনা হাতছানি দিচ্ছে হাওরবাসীর স্বপ্নে।

হাওরের বিস্ময় খ্যাত এই সড়কে এখন ভরা বর্ষাতেও চলে নানা ধরনের যানবাহন। দু'পাশে উত্তাল ঢেউ আর এলোমেলো বাতাসে খানিকটা পথ মাড়ালেই মিলবে নৈসর্গিক তৃপ্তি। বিচ্ছিন্ন এসব এলাকার মানুষ এখন ছুটছেন পাকা সড়ক ধরেই স্বচ্ছলতার গন্তব্যে। প্রত্যন্ত অঞ্চলে যাতায়াতের সুবিধা পেয়ে এখন নতুন স্বপ্নে বিভোর হাওরবাসী।

একজন বলেন, 'স্বপ্নের মত হয়ে গেছে। কখনও কল্পনাও করিনি এমন রাস্তা হবে।'

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বলছেন, এই সড়কটির ফলে এখন পর্যটনের নতুন সম্ভাবনা এই এলাকা জুড়ে।

কিশোরগঞ্জ ৪ সংসদ সদস্য রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক বলেন, 'গাড়ি চলবে এমন স্বপ্ন আমার পূর্বপুরুষেরা কখনও দেখেনি। এখানে পর্যটন নিয়ে কিছু করা হলে আমার বিশ্বাস মানুষ কক্সবাজার না গিয়ে এখানে আসবে।'

পানির স্বাভাবিক প্রবাহ ধরে রাখতে সারা বছর ব্যবহার উপযোগী এই সড়কটিতে রয়েছে অন্তত ৭৬টি সেতু ও বক্সকালভার্ট।

উল্লেখ্য, দু'চোখের দৃষ্টি যতদূর যায়, পুরোটাই অথৈ পানি আর উথাল-পাথাল ঢেউয়ের অবিরত ছুটে চলা। দূরের গ্রামগুলো যেনো একেকটা ভেসে থাকা দ্বীপ। এখানে প্রয়োজন আর তাৎক্ষণিকতার বাহন শুধুই নৌকা।