• মঙ্গলবার   ০৪ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৮ ১৪২৯

  • || ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
মুজিববর্ষে সরকারি ঘর পেয়েছে প্রায় ২ লাখ পরিবার: প্রধানমন্ত্রী আগামী প্রজন্মের জন্য পরিকল্পিত নগরায়ণের বিকল্প নেই: রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ অঞ্চলের ৫০ লাখ ভিডিও সরিয়েছে টিকটক: টেলিযোগাযোগমন্ত্রী করতোয়ায় দেশের বৃহত্তম ওয়াই ব্রিজ হবে: রেলমন্ত্রী সুজন বিএনপি সুযোগ পেলে আবার নির্যাতন চালাবে: তোফায়েল আহমেদ

ভারত থেকে আমদানির ফলে অর্ধেকে নেমেছে কাঁচা মরিচের দাম

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০২২  

ভারত থেকে আমদানির ফলে অর্ধেকে নেমেছে কাঁচা মরিচের দাম           
একসপ্তাহ আগেও বাজারে অস্থিরতা ছিল কাঁচা মরিচের দামে। এখন ভারত থেকে দেশে আমদানির ফলে দাম কমে অর্ধেকে নেমে এসেছে। বর্তমানে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের মোকামে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ১১০ থেকে ১২০ টাকা। আর খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ১৩০-১৪০ টাকায়।

গতকাল শুক্রবার (১২ আগস্ট) বাংলাহিলি বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী মঈনুল ও শাহাবুল বলেন, কোরবানি ঈদের পর থেকে বাড়তে থাকে কাঁচা মরিচের দাম। গত ৮/১০ দিন আগেও দাম বেড়ে ২৪০-২৬০ টাকায় গিয়ে ঠেকে দাম। ফলে বাজারে অস্থিরতা দেখা দেয়। এখন ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আসছে। দাম কমে মানভেদে বিক্রি হচ্ছে ১২০-১৪০ টাকার মধ্যে। দাম আরও কমবে।’

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘কাঁচা মরিচের দামের লাগাম টানতে সরকার দ্রুত ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়। ফলে গত ৬ আগস্ট থেকে আমদানিকারকেরা বন্দর দিয়ে ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি শুরু করেন। আমদানি করা কাঁচা মরিচ দেশের বিভিন্নস্থানে সরবরাহের ফলে দাম কমতে শুরু করেছে। দামের স্বাভাবিকতা আসতে আরও কয়েকদিন সময় লাগবে। তারপরে হয়তো ১০০ টাকার নিচে নেমে আসবে।’

বন্দরের আরও কয়েকজন আমদানিকারক জানান, ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি করতে সরকারকে প্রতি কেজি আমদানি শুল্ক ২৮ টাকা করে দিতে হচ্ছে। এই শুল্ক কমানো হলে দাম আরও কমবে। ফলে এর সুফল ভোক্তারা পাবেন।

হিলি স্থলবন্দরের বেসরকারি অপারেটর পানামা হিলি পোর্টের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন মল্লিক জানান, প্রতিদিনই হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি করা হচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) একদিনেই এই বন্দর দিয়ে ২৪টি ট্রাকে ৯৬ মেট্রিকটন কাঁচা মরিচ আমদানি হয়েছে।

এদিকে হিলি স্থল শুল্ক স্টেশনের উপ-কমিশনার কামরুল ইসলাম বলেন, ‘আমদানি করা কাঁচা মরিচের শুল্কায়ন দ্রুত সম্পন্ন করা হচ্ছে। ফলে ব্যবসায়ীরা সঠিক সময়ে পণ্যটি তাদের গন্তব্যস্থলে নিতে পারছেন। এতে করে আমদানি করা ভারতীয় কাঁচা মরিচের দাম কমতে শুরু করেছে।’