• রোববার   ২৯ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৯

  • || ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বাংলাদেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার প্রশংসা পর্তুগালের মরণোত্তর ‘দ্যাগ হ্যামারশোল্ড’ পেলেন দুই বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী দেশে ভেনামি চিংড়ি চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের শিল্পনগরী ও অর্থনৈতিক অঞ্চল হচ্ছে দিনাজপুর: হুইপ ইকবালুর রহিম আরও সময় নিয়ে বৈঠকের প্রস্তুতি নিতে চায় দুই ঢাকা-দিল্লি

খুলনা ও টুঙ্গিপাড়ায় দুস্থদের মাঝে সেনাপ্রধানের শীতবস্ত্র বিতরণ

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৬ জানুয়ারি ২০২২  

খুলনা ও টুঙ্গিপাড়ায় অসহায় ও দুস্থদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। বুধবার সকাল ১০টায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের যশোর ও খুলনা অঞ্চল পরিদর্শনে গিয়ে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে প্রায় ছয় হাজার অসহায় ও দুস্থ মানুষের মধ্যে তিনি এই শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

এসময় সেনাবাহিনী প্রধানের সঙ্গে ছিলেন সেনাবাহিনীর অ্যাডজুটেন্ট জেনারেল মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ, ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের সিনিয়র ডাইরেক্টিং স্টাফ মেজর জেনারেল এ কে এম আমিনুল হক, ৫৫ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার যশোর এরিয়া মেজর জেনারেল মো. নূরুল আনোয়ার এবং জিওসি ৭ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার বরিশাল এরিয়া মেজর জেনারেল খান ফিরোজ আহমেদসহ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তা, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি এবং স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা।

বুধবার (৫ জানুয়ারি) আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

এদিকে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল শফিউদ্দিন আহমেদ বলেন, শীতবস্ত্র বিতরণ ছাড়াও সেনাবাহিনীর মেডিকেল টিম বিনামূল্যে মানুষের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করছে। সেনাবাহিনী দেশমাতৃকার সেবায় সর্বদা নিয়োজিত রয়েছে। যেকোনো দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবেলায় এবং দেশের সকল প্রয়োজনে সেনাবাহিনী সাধারণ মানুষের পাশে থেকে দেশ গঠনে তাদের নিরলস প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে। তিনি বলেন, ভবিষ্যতেও সেনাবাহিনী এ ধরনের জনসেবামূলক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখবে।

এর আগে সকালে সেনাবাহিনী প্রধান খুলনার জাহানাবাদ সেনানিবাসে অন্যান্য পদবীর সৈনিকদের পারিবারিক বাসস্থানের জন্য ১১২টি ফ্ল্যাট সম্পন্ন ১৫ তলা ভবন ‘সেনানীড়’এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ৬৭টি কাঠার ওপরে নির্মিত এই ভবনে প্রতিটি ফ্লোরে আটটি ইউনিটসহ ৮৩৫ বর্গফুট এর সর্বমোট ১১২টি ফ্ল্যাট রয়েছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপন এবং স্বাধীনতা ও সেনাবাহিনীর সুবর্ণ জয়ন্তীর এই মাহেন্দ্রক্ষণে জাহানাবাদ সেনানিবাসে অন্যান্য পদবীর সৈনিকদের জন্য সেনানীড় বাসস্থান নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

আর্মি ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট কর্তৃক প্রায় সকল সেনানিবাসে ‘সেনানীড়’ প্রকল্পের কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন সেনানিবাসে সর্বমোট ১৫টি সেনানীড় আবাসনের নির্মাণ কার্যক্রম শুরু করা হয়। যার মধ্যে সাতটির নির্মাণ শেষ হয়েছে এবং বাকি আটটির নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। এই আবাসনগুলোতে বর্তমানে ৯৫৮টি পরিবার বাস করছে।

আইএসপিআর থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে শীতবস্ত্র বিতরণ শেষে সেনাবাহিনী প্রধান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মভূমি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যান।

সেনাবাহিনী প্রধানের নির্দেশে প্রতি বছরের মতো এবছরও শীত মৌসুমে অসহায় ও দরিদ্র শীতার্থ মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণসহ নানা জনসেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে সেনাবাহিনী।

এরই ধারাবাহিকতায় ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের শীতকালীন প্রশিক্ষণ পরিদর্শন শেষে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা কমপ্লেক্স সংলগ্ন মাঠে সেনাবাহিনী প্রধান স্থানীয় হতদরিদ্র ১৫০০ জন মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন।

প্রসঙ্গত, সেনাবাহিনী প্রধান ৪ জানুয়ারি ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের শীতকালীন প্রশিক্ষণ পরিদর্শন করেন এবং একই সঙ্গে নড়াইলের লোহাগড়ায় হতদরিদ্র মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। এছাড়া গতকাল তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সুপারভিশনে মধুমতি নদীর ওপর নির্মিতব্য রেল সেতু প্রজেক্ট পরিদর্শন করেন।