• শনিবার   ১৩ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৯ ১৪২৯

  • || ১৪ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
পঞ্চগড়ে পাঁচ হাজার গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা তিনমাস পর হারানো মোবাইল উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিল পুলিশ এসডিজি অর্জনে সংসদ সদস্যদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ: স্পিকার বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠাতে সৌদি প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান পদ্মা সেতু চালুর পর দর্শনার্থীতে মুখর বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ

আমিরাত থেকে আসছে ৩ লাখ ৬০ হাজার টন ইউরিয়া সার

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২ আগস্ট ২০২২  

সারের ঘাটতি মেটাতে জি-টু-জি চুক্তির আওতায় সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে তিন লাখ ৬০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আমদানি করা হচ্ছে। চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের এই সার সংগ্রহ করা হবে। আমিরাতে ফার্টিগ্লোব ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেড থেকে এই সার কেনা হবে। চলতি অর্থবছরে দেশে ইউরিয়া সারের চাহিদা হচ্ছে ৩৪ লাখ মেট্রিক টন।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (বিসিআইসি) কর্তৃক ২০২২-২৩ অর্থবছরে সংযুক্ত আর আমিরাতের ফার্টিগ্লোব ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেড থেকে ইউরিয়া সার আমদানির লক্ষ্যে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানটির সাথে বিসিআইসির চুক্তি স্বাক্ষরের অনুমতি দেয়াসংক্রান্ত প্রস্তাবটি ২০২২ সালের ৫ জুলাই পাওয়া যায়। এরই ধারাবাহিকতায় ২০২১ সালের ১৯ মে তারিখে অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনক্রমে ২০২১-২২ অর্থবছরে ফার্টিগ্লোব ডিস্টিবিউশন লিমিটেড থেকে ফার্ম এক লাখ ৮০ লাখ মেট্রিক টন এবং অপশনাল এক লাখ মেট্রিক টনসহ মোট দুই লাখ ৮০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আমদানির চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তির আওতায় ৯টি লটের মধ্যে ইতোমধ্যে সাতটি লটে দুই লাখ ২৬ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানি করা হয়েছে এবং অবশিষ্ট সার আমদানির প্রক্রিয়া চলমান। ওই চুক্তির মেয়াদ ২০২২ সালের ৩০ জুন শেষ হয়েছে।

সূত্র জানায়, কৃষি মন্ত্রণালয় কর্তৃক ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য ইউরিয়া সারের চাহিদা ২৬ লাখ মেট্রিক টন এবং নিরাপত্তা মজুদ কমপক্ষে আট লাখ মেট্রিক টন নির্ধারণ করা হয় অর্থাৎ ২০২২-২৩ অর্থবছরে মোট ৩৪ লাখ মেট্রিক টন সার সংগ্রহ করা প্রয়োজন। এ চাহিদার বিপরীতে ইউরিয়া সারের সংগ্রহ পরিকল্পনা এ মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত হয়। অনুমোদিত সংগ্রহ পরিকল্পনায় জি-টু-জি ভিত্তিতে ১১ লাখ ৭০ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে এবং চার লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন সার অপশনাল হিসেবে চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ফার্টিগ্লোব থেকে ফার্ম দুই লাখ ৪০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আমদানির পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে এবং জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় চুক্তিতে অপশনাল এক লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন সার অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

সূত্র জানায়, ২০২২-২৩ অর্থবছরের ফার্টিগ্লোব থেকে ইউরিয়া সার আমদানির জন্য প্রতিষ্ঠানটিকে খসড়া চুক্তি পাঠানোর অনুরোধ করা হয়। সে প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটি খসড়া চুক্তি পাঠায়। এ অবস্থায় জি-টু-জি চুক্তির আওতায় ২০২২-২৩ অর্থবছরের জন্য এই প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতি লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন করে ফার্ম দুই লাখ ৪০ হাজার মেট্রিক টন এবং অপশনাল এক লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টনসহ মোট তিন লাখ ৬০ হাজার মেট্রিক টন ইউরিয়া সার আমদানির লক্ষ্যে ফার্টিগ্লোবের সাথে বিসিআইসির চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের জন্য একটি প্রস্তাব কমিটির পরবর্তী সভায় উপস্থাপন করা হবে।

সূত্র জানায়, চুক্তি অনুযায়ী প্রতি মেট্রিক টন সারের দাম নির্ধারণ করা হবে এবং সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন নিয়ে প্রতি লটে ৩০ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানি করা হবে।