• বৃহস্পতিবার   ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়াতে মুসলিমদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান সংখ্যালঘু বলতে কোনো শব্দ নেই, আমরা সবাই বাঙালি: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আইএমএফের ঋণই প্রমাণ করে দেশের অর্থনীতির ভিত্তি মজবুত: অর্থমন্ত্রী করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ৩.৮% প্রসারিত হয়েছে শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা করার মানসিকতা পরিহার করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

পাশবিক নির্যাতনে শিশুকে হত্যার পর উঠানে পুঁতে রাখেন শরীফুল

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৫ ডিসেম্বর ২০২২  

দিনাজপুরের খানসামায় আট বছর বয়সী এক শিশুকে বলাৎকারের পর হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত শরীফুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার দুপুর ২টার দিকে দিনাজপুরের পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহমেদ প্রেস কনফারেন্সে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বলাৎকারকারী এবং হত্যাকারী শরীফুল ইসলাম খানসামা উপজেলার কায়েমপুর গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে।

পুলিশ সুপার বলেন, গত ২ ডিসেম্বর ভুক্তভোগী শিশুকে শরীফুল ইসলাম অপহরণ করেন। অপহরণের পর শরীফুল তাকে উপজেলার পাকেরহাট সংলগ্ন আরাজি যুগিরঘোপা অব্যবহৃত আব্দুস সালামের ভাড়া বাড়িতে আটকে রাখেন। এরপর শরীফুল ইসলাম ঐ শিশুকে বলাৎকার করেন। এ ঘটনা ভুক্তভোগী তার বাবা মাকে বলে দেবে বললে শরীফুল তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। পরে হাত-পা বেঁধে লাশ বস্তাবন্দি করে ভাড়া বাড়ির উঠানে পুঁতে রাখেন।

তিনি আরো বলেন, ঐ শিশুর লাশ পুঁতে রেখে শরীফুল ভুক্তভোগীর বাবাকে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে মোবাইল করেন। শরীফুলের চাহিদা মতো পাঁচ হাজার ৪০০ টাকা বিকাশের মাধ্যমে পাঠানো হয়। ঐ সূত্র ধরে পুলিশ শরীফুলকে ৪ ডিসেম্বর গ্রেফতার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শরীফুল ঐ শিশুকে অপহরণ বলাৎকার, হত্যা, লাশ পুঁতে রাখা এবং মুক্তিপণ দাবির কথা বর্ণনা করেন।

গ্রেফতারকৃত শরীফুলের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ভুক্তভোগীর হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার করা হয়। শরীফুল ইসলামকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।