• বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪৩১

  • || ২১ জ্বিলকদ ১৪৪৫

সুশাসন প্রতিষ্ঠাই আমাদের লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

তার সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সুশাসনই প্রতিষ্ঠাই আমাদের লক্ষ্য।

তিনি আরও বলেন, সরকারি অফিসগুলোতে দুর্নীতি প্রতিরোধ ও সুশাসন নিশ্চিতের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে বিসিএস কর্মকর্তাদের ৭৪তম বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ সমাপনী সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুর লক্ষ্য সামনে নিয়েই আওয়ামী লীগ দেশ পরিচালনা করছে। তিনি (বঙ্গবন্ধু) নিজেকে প্রধানমন্ত্রী নন, জনগণের সেবক মনে করতেন। কিন্তু অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীরা ক্ষমতায় এসে সব ধ্বংস করে দেয়।

সরকারপ্রধান বলেন, সামরিক শাসকরা ক্ষমতা দখল করলে দুর্নীতি বেশি হয়। কারণ জনগণের কাছে তাদের জবাবদিহি করতে হয় না। আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত, সুশাসনই প্রতিষ্ঠাই আমাদের লক্ষ্য।

বক্তব্যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নবীন সরকারি কর্মকর্তাদের মেধা ও উদ্ভাবনী শক্তি কাজে লাগিয়ে অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালনের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, আজকের কর্মকর্তাই ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার সৈনিক। ১৪ বছর আগের বাংলাদেশ আর নেই। তৃণমূল পর্যায়ে উন্নয়নের ধারা পৌঁছেছে। যা নবীন কর্মকর্তাদের অব্যাহত রাখতে হবে।

কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সরকারের প্রণীত ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ বাস্তবায়নের জন্য আপনাদের কাজ করতে হবে। সরকার ইতোমধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব থেকে বাংলাদেশকে রক্ষা করার জন্য এটির বাস্তবায়ন শুরু করেছে। আপনাদের মনে রাখতে হবে যে আমাদের সবসময় সামনের দিকে অগ্রসর হতে হবে।

‘বাংলাদেশ এক সময় বিদেশি দেশগুলোর কাছে অবহেলিত ছিল। তাঁর সরকারের সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে বাংলাদেশ এখন বিশ্ব মঞ্চে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে’—যোগ করেন তিনি।

রুশ-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রসঙ্গ টেনে শেখ হাসিনা বলেন, দুই দেশের যুদ্ধের কারণে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বই সংকটে। যুদ্ধ কতদিন চলবে, কেউ জানে না। তাই গ্যাস-বিদ্যুতসহ সবক্ষেত্রে সাশ্রয়ী ও মিতব্যয়ী হতে হবে। সঞ্চয়ী হতে হবে।

এসময় সবাইকে উৎপাদন বাড়ানোর উপর জোর দেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, আমাদের উৎপাদন বাড়ানোর দিকে নজর দিতে হবে। আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাচ্ছি অবস্থা মোকাবিলা করতে।