• বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৬ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

জুলাইয়ে ৪১তম, ডিসেম্বরে ৪৩তম বিসিএসের ফল প্রকাশের পরিকল্পনা 

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৫ মে ২০২৩  

আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে ৪১তম এবং ৪৩তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশের পরিকল্পনা করেছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। সেই লক্ষ্যে রোডম্যাপ করে কাজ শুরু করেছে সংস্থাটি। এই রোডম্যাপ অনুযায়ী আগামী বছরের মার্চের মধ্যে ৪৪তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে।

জানতে চাইলে পিএসসি চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, প্রতি বছর একটি বিসিএস ও যেসব বিসিএসের প্রিলিমিনারি বা লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হয়েছে, সেগুলোর ফল দ্রুত করতে একটি রোডম্যাপ করা হয়েছে। এতে বিসিএসের গতি বাড়বে। সেগুলো বাস্তবায়ন করতে পারলে বিসিএসের যে জট সেটি কেটে যাবে। আমরা আশা করছি ২০২৪ সাল থেকে বছরে একটি বিসিএস শেষ করতে পারব।

জানা গেছে, আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে ৪১তম ও ৪৩তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত রোডম্যাপ তৈরি করে তা সংশ্লিষ্ট শাখার কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। এই রোডম্যাপ অনুযায়ী আগামী বছরের মার্চের মধ্যে ৪৪তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করবে পিএসসি।

পিএসসির সূত্র জানিয়েছে, চলতি বছরে তিনটি বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। তবে কিছু জটিলতার কারণে তা সম্ভব হচ্ছে না। নতুন রোডম্যাপ অনুযায়ী চলতি বছরে ৪১তম ও ৪৩তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন পিএসসির কর্মকর্তারা।

জানা গেছে, বর্তমানে ৪১তম বিসিএসের ভাইভা চলছে। এটি শেষ হয়ে গেলে ৪৩তম বিসিএসের ভাইভা শুরু করা হবে। ডিসেম্বরের মধ্যে এই দুই বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা সম্ভব হবে।


জুলাইয়ে ৪১তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল

২০১৯ সালের ২৭ নভেম্বর ৪১তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল পিএসসি। এতে চার লাখের বেশি প্রার্থী আবেদন করেছিলেন। লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন ২১ হাজার ৫৬ জন।

লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেওয়া প্রার্থীদের ১৫ হাজার খাতায় ২০ শতাংশ নম্বরের গরমিল পাওয়ায় ফল প্রকাশে কিছুটা বিলম্ব হয়। গরমিল হওয়া খাতাগুলো তৃতীয় পরীক্ষকের মাধ্যমে মূল্যায়ন শেষে ভাইভা শুরু করা হয়। বর্তমানে টেকনিক্যাল ক্যাডারের ভাইভা ছাড়া সব ভাইভা শেষ হয়েছে। ফলে জুনের মধ্যে ভাইভা শেষ করে জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হতে পারে।

ডিসেম্বরের মধ্যে ৪৩তম বিসিএসের ফল

গত বছরের আগস্ট মাসে ৪৩তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা শেষ হয়েছে। প্রথম ও দ্বিতীয় পরীক্ষকের দেওয়া নম্বরের পার্থক্য ২০ শতাংশের বেশি হওয়ায় খাতাগুলো এখন তৃতীয় পরীক্ষকের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে। জুলাই মাসের মধ্যে এই বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে চায় পিএসসি।

আগস্টের শুরুতে ৪৩তম বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা শুরু করতে চায় পিএসসি। নভেম্বরের মধ্যে মৌখিক পরীক্ষা শেষ করে ডিসেম্বরের মধ্যে চূড়ান্ত ফল প্রকাশের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সংস্থাটি।