• রোববার ১৪ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • চৈত্র ৩০ ১৪৩০

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

৪-৫ দিনের মধ্যেই যানজট থেকে মুক্তি পাবে ঢাকাবাসী

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২ এপ্রিল ২০২৪  

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, রমজান মাস শুরুর পর থেকে দুপুর গড়ালেই রাজধানীর সড়কগুলোতে প্রচন্ড যানজট শুরু হয়। এ যানজট আরও তীব্র হতে শুরু করে যখন ঈদ ঘনিয়ে আসে। বিশেষ করে মার্কেট সংলগ্ন রাস্তাগুলোতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজট লেগে থাকে। ১০ মিনিটের পথ ঘণ্টা পেরিয়েও পৌঁছানো যাচ্ছে না। ৪-৫ দিনের মধ্যেই ঢাকাবাসী যানজটের দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাবেন।

সোমবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত ঈদুল ফিতরে দেশের সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যালোচনা, ঈদের আগে গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধ, সড়ক মহাসড়ক নিরাপদ ও যানজটমুক্ত রাখাসহ প্রাসঙ্গিক অন্যান্য বিষয়ে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রমজান মাসে যানজট কিছুটা বাড়ে। ঈদ ঘনিয়ে এলে এটা আরো বাড়ে। ঈদ শপিংয়ের জন্য মানুষ মার্কেটে যায়। আবার উন্নয়ন কাজের জন্য কিছু রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশ নিরাপত্তা বাহিনী সড়কে রয়েছে। ঈদ সামনে রেখে যানজট সহনীয় রাখার বিষয়ে ট্রাফিক বিভাগ কাজ করছে। শিগগিরই যানজট কমে যাবে।

তিনি আরো বলেন, যানজট বাড়ার অনেক কারণের মধ্যে একটি হলো ট্রাফিক পুলিশ রাস্তার মাঝে দাঁড় করিয়ে গাড়ি চেক করে। পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা এ বিষয়ে নজর রাখবেন।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, ঈদের ছুটি চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে নির্ধারণ হয়। ২৯ রোজা হলে ঈদ ১০ তারিখে হয়। তাহলে ৯ এপ্রিল ঘরমুখো মানুষের প্রচন্ড ভিড় পরবে। আজ কেবিনেটে আলোচনা করে ছুটিটি অপশনাল করা হয়েছে। যারা প্রয়োজন মনে করবেন তারা ৯ তারিখ ছুটি নিতে পারবেন। সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলো অপশনাল ছুটি হিসেবে নিতে পারবেন। আর ব্যাংক ও অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলো চালু থাকবে।

পয়লা বৈশাখের অনুষ্ঠান নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পয়লা বৈশাখের অনুষ্ঠান ঘিরে প্রতি বছর আমরা একটা সময় নির্ধারণ করে দেই। আমাদের পুলিশ ও গোয়েন্দা বাহিনী সজাগ রয়েছে। পয়লা বৈশাখর দিন মঙ্গল শোভাযাত্রা হোক বা যাই হোক, সেখানে কোনো বাধা নেই। তবে সন্ধ্যার পর সীমিত করে দিতে চেয়েছি, যেন উদ্যানে, রাস্তাঘাটে, উন্মুক্ত স্থানে অনুষ্ঠান না করে।