• মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ২১ ১৪৩০

  • || ২৩ শা'বান ১৪৪৫

সর্বশেষ:
ভবন নির্মাণে বিল্ডিং কোড অনুসরণ নিশ্চিত করুন: প্রধানমন্ত্রী কোনো অজুহাতেই যৌন নিপীড়ককে ছাড় নয়: শিক্ষামন্ত্রী স্পর্শকাতর মামলার সাজা নিশ্চিত করতে হবে: আইজিপি চলতি মাসেই একাধিক কালবৈশাখীর শঙ্কা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশদ্রোহীরা মানুষকে কষ্ট দেয়: নাছিম

হাবিপ্রবিতে “সুশাসন প্রতিষ্ঠায় অংশীজনের অংশগ্রহণ” বিষয়ক সভা

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ মে ২০২৩  

 
হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের সহযোগী অধ্যাপক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দের জন্য “সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের অংশগ্রহণ” বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার সকাল সাড়ে ৯টায় হাবিপ্রবির ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেল (আইকিউএসি) এবং ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের আয়োজনে চলতি অর্থবছরের জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আইকিউএসি কনফারেন্স রুমে “সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের অংশগ্রহণ” বিষয়ক এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন হাবিপ্রবির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান। আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. বিকাশ চন্দ্র সরকারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক প্রফেসর ড. ইমরান পারভেজ এবং স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইকিউএসি’র অতিরিক্ত পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ তহিদার রহমান।  

এদিকে রবিবার দুপুর ২টায় অডিটোরিয়াম-২ তে আইকিউএসি’র ব্যবস্থাপনায় জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ ও শাখায় কর্মরত বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মচারীগণের জন্য শুদ্ধাচার সংক্রান্ত দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ও রিসোর্স পার্সন ছিলেন হাবিপ্রবির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান বলেন, একটি দেশে যদি সুশাসন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা থাকে তবে যেকোন লক্ষ্য বাস্তবায়ন অনেক সহজ হয়। সরকার ঘোষিত রূপকল্প বাস্তবায়নে শুদ্ধাচার এর উপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়েও শুদ্ধাচার কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে, এজন্য সুশাসন অত্যন্ত জরুরি। যদি সেটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয় তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কোনো লক্ষ্য অর্জন করা সহজতর হবে। প্রতিটি ক্ষেত্রে আমরা স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা কিভাবে নিশ্চিত করবো সেটি আলোচনার বিষয়বস্তু।