• শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪৩১

  • || ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

বেরোবিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৫ আগস্ট ২০২৩  

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ৪৮তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস ২০২৩ পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট, ২০২৩) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এঁর ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ হাসিবুর রশীদ, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. সরিফা সালোয়া ডিনা ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. মজিব উদ্দিন আহমদ।

পরে পর্যায়ক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদ, বিভাগ, দপ্তর, আবাসিক হল, ইন্সটিটিউট, শিক্ষক সমিতি, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন, কর্মচারী ইউনিয়ন, বেরোবি ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করা হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায়  উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ হাসিবুর রশীদের নেতৃত্বে একটি শোক র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু ম্যুরালের সামনে এসে শেষ হয়। জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ হাসিবুর রশীদ।

দিবসটি পালন উপলক্ষে সকাল ১১টায় ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেক। প্রধান অতিথি বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ই আগস্টে নির্মমভাবে নিহত সকল শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে ষড়যন্ত্রকারীদের বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে থেমে দেওয়ার অপচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে । বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. আবদুল খালেক আরো বলেন, জীবিত বঙ্গবন্ধুর মতোই অন্তরালের বঙ্গবন্ধু শক্তিশালী। বঙ্গবন্ধু আজীবন বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ হাসিবুর রশীদ বলেন, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ একই সূত্রে গাঁথা। বঙ্গবন্ধু আজীবন দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কাজ করেছেন। নিপীড়িত-নির্যাতিত মানুষের মুক্তির আলোকবর্তিকা হয়ে তিনি বিশ্বকে করেছেন আলোকময়। উপাচার্য আরো বলেন, নতুন প্রজন্ম যাতে বঙ্গবন্ধুর নীতি, আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে বেড়ে উঠতে পারে, সেজন্য সবাইকে উদ্যোগী হতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. সরিফা সালোয়া ডিনা বলেন, দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে দেশবিরোধীদের ষড়যন্ত্র এখনো চলছে। শিক্ষাঙ্গনের সবাইকে সচেতন ও ঐক্যবদ্ধ হয়ে ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় সতর্ক থাকার আহবান জানান তিনি।

ট্রেজারার প্রফেসর ড. মজিব উদ্দিন আহমদ বলেন, ১৫ আগস্টের নৃশংস হত্যাকান্ড সমগ্র বিশ্বে জাতি হিসেবে আমাদেরকে ছোট করেছে। এই হত্যাকান্ডের কুশীলবদের চিহ্নিত করা এবং তাদের বিচারের আওতায় আনা এখন সময়ের দাবি।

একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক উমর ফারুকের সঞ্চালনায় ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বেরোবি জাতীয় শোক দিবস উদ্যাপন কমিটির আহবায়ক ড. বিজন মোহন চাকী, সদস্য সচিব মোঃ বেলাল উদ্দিন, বেরোবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোঃ শরিফুল ইসলাম, বেরোবি শাখা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি গণিত বিভাগের অধ্যাপক কমলেশ চন্দ্র রায়, বেরোবি নীল দলের সভাপতি বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. নিতাই কুমার ঘোষ, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক সৈয়দ আনোয়ারুল আজিম, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ ফজলুল হক, বেরোবি ছাত্রলীগের সভাপতি পোমেল বড়ুয়া, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান শামীম প্রমুখ।  

এছাড়াও জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এবং ১৫ই আগস্টে নির্মমভাবে নিহত সকল শহীদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বাদ যোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রিয় মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।