• মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪৩০

  • || ২২ শা'বান ১৪৪৫

সর্বশেষ:
ভবন নির্মাণে বিল্ডিং কোড অনুসরণ নিশ্চিত করুন: প্রধানমন্ত্রী কোনো অজুহাতেই যৌন নিপীড়ককে ছাড় নয়: শিক্ষামন্ত্রী স্পর্শকাতর মামলার সাজা নিশ্চিত করতে হবে: আইজিপি চলতি মাসেই একাধিক কালবৈশাখীর শঙ্কা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দেশদ্রোহীরা মানুষকে কষ্ট দেয়: নাছিম

আমি মোটেও আবেদনময়ী নই: ম্রুণাল

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

বলিউডে স্টার কিডস ছাড়া নবাগতদের পথচলা হয়ে ওঠে খুব কঠিন। বিশেষ করে অভিনেত্রীদের বিভিন্ন ধরণের সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। কাস্টিং কাউচ থেকে শুরু করে বডি শেমিং তো আছেই, সঙ্গে কটাক্ষের শিকারও হতে হয়। তোষামোদ নয়তো প্রেমের অভিনয় দিয়ে ক্ষমতাধরদের মন জুগিয়ে চলতে হয়। শুধু প্রতিভার ওপর আস্থা রেখে অভিনয় ক্যারিয়ার টিকিয়ে রাখা সহজ নয় বলেই এমনটি করতে হয়। অভিনীত কোনো সিনেমা বড় রকমের বাণিজ্যিক সাফল্য পেলেই পথচলা খানিকটা মসৃণ হয়ে যায়। নইলে বলিউডে নিজের অবস্থান পোক্ত করা অনেকের জন্যই চ্যালেঞ্জিং।

বলিউডের এমন বাস্তবতাই এবার উঠে এলো অভিনেত্রী ম্রুণাল ঠাকুরের কথায়; যিনি ‘লাভ সোনিয়ে’ থেকে শুরু করে ‘সুপার থার্টি’, ‘বাটলা হাউস’, ‘জার্সি’, ‘পিপ্পা’সহ আরও বেশকিছু বলিউড সিনেমায় অভিনয় করে দর্শকের নজর কেড়েছেন। দিন দিন তার সিনেমার সংখ্যা বাড়লেও শুরুর পথচলা মোটেও সহজ ছিল না।

এ নিয়ে সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকারে ম্রুণাল বলেছেন, ‘মারাঠি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অভিনয়ে অভিষেক হলেও আমি সব সময় চেয়েছি বলিউডের হিন্দি ছবিতে কাজ করতে। সে কারণেই কয়েকজন নির্মাতাকে অনুরোধও করেছিলাম। কিন্তু সেই অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে যে বডি শেমিংয়ের শিকার হবো, কাজের বদলে জুটবে কটাক্ষ– তা স্বপ্নেও ভাবিনি। এক নির্মাতা তো সরাসরি বলেই দিয়েছিলেন, আমি মোটেও আবেদনময়ী নই। তাদের জন্য সেই অভিনেত্রী প্রয়োজন, যে আবেদনময়ী। এ কথার জবাবে আমি বলেছিলাম, শুধু জীবন্ত নয়, আমার শরীরের মৃত কোষগুলোও আবেদনময়ী– যা দেখার দৃষ্টি সবার নেই। আমিও সেটি সব সময় দেখাতে চাই না। ন্যাচারাল থাকতেই পছন্দ করি, যাতে পরিচালক আমাকে যে কোনো চরিত্রের জন্য ভাবতে পারেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘অভিনয়ের জগতে প্রতিষ্ঠার জন্য কখনও কোনো অপ্রীতিকর বিষয়কে সমর্থন করিনি। অংশ নিইনি শীর্ষ তারকা হওয়ার দৌড়ে। দর্শক যদি অভিনয়ের জন্যই আমাকে ভালোবাসেন, তখন অভিনয়ের দিকেই মনোযোগী হওয়া উচিত। কবে কে আমাকে গেঁয়ো ভূত, নন-গ্ল্যামার কিংবা আবেদনহীন বলেছে, তা নিয়ে মাথা ঘামাতে চাই না। নিজের প্রতি বিশ্বাস রেখেই ভালো কিছু কাজ করে যেতে চাই।’