• বৃহস্পতিবার   ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৯ ১৪২৯

  • || ০৯ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়াতে মুসলিমদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান সংখ্যালঘু বলতে কোনো শব্দ নেই, আমরা সবাই বাঙালি: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আইএমএফের ঋণই প্রমাণ করে দেশের অর্থনীতির ভিত্তি মজবুত: অর্থমন্ত্রী করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ৩.৮% প্রসারিত হয়েছে শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা করার মানসিকতা পরিহার করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

বেগুনি রঙের বাঁধাকপি খাওয়ার উপকারিতা

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১০ ডিসেম্বর ২০২২  

শীতকাল, এই ঠান্ডা ঠান্ডা আবহাওয়ায় গরম খিচুড়ির সঙ্গে বাঁধাকপির তরকারির জুড়ি মেলা ভার। তবে গ্যাস-অম্বল হয় বলে অনেকেই আবার বাঁধাকপি এড়িয়ে চলেন। 

বাজারে সবুজ কচি বাঁধাকপির পাশাপাশি বেগুনি বাঁধাকপিও দেখা দিতে শুরু করেছে। সবুজ বাঁধাকপির জনপ্রিয়তা নিঃসন্দেহে বেশি। স্বাস্থ্যগুণের দিক থেকে বেগুনি বাঁধাকপিও কিন্তু পিছিয়ে নেই। অনেকেই স্যালাডে ব্যবহার করেন এই বাঁধাকপি। এর স্বাদও মন্দ নয়। শরীর এবং ত্বকের অনেক সমস্যার নিমেষে সমাধান করে এই বাঁধাকপি। এই বাঁধাকপি খেলে কী কী সুফল মেলে?

অকাল বার্ধক্য রোধ করে
বেগুনি বাঁধাকপিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট, ভিটামিন এ, ভিটামিন সি, যা ভিতর থেকে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়িয়ে তোলে। এই বাঁধাকপি ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না। এ ছাড়াও ত্বকে বিভিন্ন সংক্রমণ দূর করতেও এই বাঁধাকপি দারুণ কাজ করে।

ওজন কমায়
বেগুনি বাঁধাকপিতে ক্যালোরির পরিমাণ অনেক কম। ফলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে এই সব্জি হতে পারে মোক্ষম অস্ত্র। ডায়েট করেন এমন অনেকেই স্যালাডে এই বাঁধাকপি ব্যবহার করেন। তা ছাড়া এই বাঁধাকপিতে ডায়েটারি ফাইবারের পরিবারের পরিমাণ অনেক বেশি। এই ফাইবার দীর্ঘ ক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখতে সাহায্য করে। ফলে বারে বারে খাবার খাওয়ার আশঙ্কাও থাকে না।

হজমের সমস্যা দূর করতে
হজমের গোলমাল কমানোর অন্যতম হাতিয়ার হল ফাইবার। বেগুনি বাঁধাকপিতে ফাইবারের পরিমাণ অনেক বেশি। যা হজমে সহায়তা করে। এ ছাড়াও পরিপাকতন্ত্র সংক্রমণ দূর করতেও বাঁধাকপি দারুণ কার্যকর।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়
বেগুনি বাঁধাকপিতে ভিটামিন সি-র পরিমাণ অনেক বেশি। এই ভিটামিন শরীরের শ্বেত রক্তকণিকা তৈরি করে। এই রক্তকণিকা শরীরে জীবাণুর সংক্রমণ দূর করে। রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতেও এই সব্জির জুড়ি মেলা ভার।

হার্ট ভালো রাখতে
বেগুনি বাঁধাকপিতে থাকা অ্যান্থোসায়ানিন হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমায়। যারা নিয়মিত অ্যান্থোসায়ানিন-সমৃদ্ধ সব্জি খান, তাদের হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা অনেক কম। এই বাঁধাকপি প্রায় ৩২ শতাংশ পর্যন্ত হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়।