• সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪৫

সর্বশেষ:
জনগণের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে সরকার- প্রধানমন্ত্রী সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করছে সরকার: নৌপ্রতিমন্ত্রী শিক্ষা মানুষের সব সুযোগের দুয়ার উন্মোচন করে: গণপূর্তমন্ত্রী অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজি রোধে সতর্ক থাকতে হবে: খাদ্যমন্ত্রী রোজার আগেই দে‌শে ঢুকবে ভারতের পেঁয়াজ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাতে ১১ আরোহী নিহত

– নীলফামারি বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২৩  

ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিমাঞ্চলে একটি আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে ১১ জন পর্বতারোহীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সংবাদমাধ্যম এএফপিকে এ তথ্য জানিয়েছে স্থানীয় উদ্ধারকর্মীরা।

জানা গেছে, সুমাত্রা দ্বীপের মারাপি পর্বতের উচ্চতা ২,৮৯১ মিটার (৯,৪৮৪ ফুট)।  রোববার এই পর্বতে অগ্ন্যুৎপাত হলে আকাশে ৩০০০ মিটার ওপরে ছাই ছড়িয়ে পড়ে।

একজন উদ্ধারকারী কর্মকর্তা বলেছেন, নিরাপত্তার কারণে আরো ১২ জন নিখোঁজ ব্যক্তিকে খুঁজে বের করার জন্য অনুসন্ধান সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ সতর্কতাটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্তরে উত্থাপন করেছে এবং বাসিন্দাদের ৩ কিলোমিটারের মধ্যে যেতে নিষেধ করেছে।

অনুসন্ধান ও উদ্ধারকারী দলের মুখপাত্র জোডি হরিয়াওয়ান বলেছেন, রোববারের অগ্নুৎপাতের সময় এলাকায় ৭৫ জনের মধ্যে ১১ পর্বতারোহীর মৃতদেহসহ সোমবার তিনজনকে জীবিত পাওয়া গেছে।

জোডি আরো বলেন, আমরা যদি এখন অনুসন্ধান চালিয়ে যাই তবে এটি খুব বিপজ্জনক।

খবরে বলা হয়েছে, ২,৮৯১ মিটার (৯,৪৮৫ ফুট) উঁচু আগ্নেয়গিরিটি রোববার আকাশে ৩ কিলোমিটার পর্যন্ত ছাই উপরে উঠেছিল। 

সোমবারের শুরুতে ওই এলাকা থেকে ৪৯ জন পর্বতারোহীকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে এবং অনেককে পুড়ে যাওয়ার কারণে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মারাপি হলো সুমাত্রা দ্বীপের সবচেয়ে সক্রিয় আগ্নেয়গিরিগুলোর একটি এবং এটির সবচেয়ে মারাত্মক অগ্ন্যুৎপাত হয়েছিল ১৯৭৯ সালের এপ্রিলে। সেই সময় ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

ইন্দোনেশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরের তথাকথিত 'রিং অফ ফায়ার' এ অবস্থান করছে। আগ্নেয়গিরি সংস্থা অনুসারে, দেশটি ১২৭টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে।